অনেক বাংলাদেশিদের বৈধতাঃঅনেকেরই অনিশ্চিত?

    0
    232

    আমার সিলেট  24 ডটকম,০১নভেম্বঅবৈধ প্রবাসী শ্রমিকদের বৈধ কাগজপত্র সংগ্রহের জন্য গত সোমবার থেকে শ্রম মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শক দল বিশেষ অভিযান শুরু করছে সৌদিতে। সরকারের বেধে দেয়া সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ শেষ হতে যাচ্ছে। এ সাধারণ ক্ষমার সুযোগ কাজে লাগিয়ে বৈধতা নিশ্চিত করেছে ৪০ লাখ অবৈধ প্রবাসী । এর মধ্যে বাংলাদেশি শ্রমিক আছে প্রায় ৭ লাখ। অধিকাংশ অবৈধ বাংলাদেশি শ্রমিক সাধারণ ক্ষমার  সুযোগ কাজে লাগিয়ে বৈধতা নিয়েছেন বলে বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। তবে কোন প্রকার বৈধ কাগজপত্র না থাকায় এখনো কয়েক হাজার বাংলাদেশি শ্রমিক বৈধতা নিতে পারেননি বলেও জানা গেছে। তাদের ভাগ্য অনিশ্চিত, বিশেষ অভিযানে এ সমস্ত অবৈধ শ্রমিকেরা গ্রেপ্তার হতে পারেন।

    এদিকে ফিলিপাইন সরকার সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ বাড়ানোর জন্য সৌদি সরকারের কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছে বলে সৌদির অনলাইন সংস্কারণ আরব নিউজের এক প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানা গেছে।বাংলাদেশ দূতাবাসের এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তার বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে জানা গেছে, যথা সময়ে বৈধ করণের কাজটি শেষ করতে সোমবার ঢাকা থেকে একটি বিশেষ প্রতিনিধি দল রিয়াদ ও জেদ্দা পৌঁছে। সৌদি কর্মকর্তা আশা প্রকাশ করে জানান, ৩নভেম্বরের আগে এখনও বৈধ কাগজপত্র না পাওয়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের কাগজপত্র পাওয়ার বিষয়টি মানবিক বিবেচনায় সমাধান হবে। এ জন্য চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠান ও চাকরি প্রার্থীদের মধ্যে যেন ভালো বোঝাপড়া হয় সে জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। তাছাড়া অবৈধ এসব অভিবাসীদের বৈধ কাজে যোগদানে আগ্রহী করতে বিভিন্ন জব ফেয়ারের আয়োজন করা হয় বলেও তিনি জানান।

    এ সব প্রবাসীদের অফিস সহকারি, ড্রাইভার, ইলেকট্রিশয়ান এবং কিনারসহ আরও কয়েক ধরনের চাকরিতে পুর্নবাসন করা হবে। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটির ১০০টি প্রদেশ ভিত্তিক কোম্পানি পছন্দমতো শ্রমিক বেছে নেয়ার জন্য ওই জব ফেয়ারে অংশ নেয়। এ সময় শ্রমিকদের বেতন ও ইকামার বিষয়ে বাংলাদেশ মিশন ও কোম্পানিগুলোর মধ্যে দ্বিপাকি আলোচনা হয়েছে।সূত্রে জানা যায়, আগামী সোমবার থেকে আবার সৌদি শ্রম মন্ত্রণালয়ের বিশেষ পরিদর্শক দল বিভিন্ন কোম্পানি, মার্কেট ও জনবহুল স্থানে অভিযান শুরু করবে।১হাজার ২০০ সদস্যের পরিদর্শক দল এ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করবে। অবৈধ নারী শ্রমিকদের ধরার জন্য পরিদর্শক দলে বেশ কিছু নারী সদস্যও রয়েছে বলে সৌদি শ্রম মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
    পরিদর্শক দলের প্রধান আব্দুল্লাহ আবু তুনাইন বলেন, নিরাপত্তা বাহিনীর সহায়তা নিয়ে আমরা অবৈধ শ্রমিকদের ধরতে এ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করব। পরিদর্শক দল শ্রমিকদের আবাসন কার্ড ও কাজের বৈধতা সংক্রান্ত কাগজপত্র সঠিক আছে কিনা সেটা যাচাই করবে।যারা সঠিক কাগজপত্র প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হবে তাদের ১ লাখ রিয়াল জরিমানা ও দুই বছরের কারাদণ্ড দেয়া হবে। তিনি বলেন, পরিদর্শক দল ফার্মেসী, সেলুন, রেস্টুরেন্ট, নিরাপত্তা প্রহরী ও ড্রাইভিং পেশায় নিয়োজিতদের বৈধতাও যাচাই করবে। কারণ অধিকাংশ অবৈধ শ্রমিক এ সমস্ত পেশায় যুক্ত। আর যে সকল সৌদি নাগরিকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য কাজের ক্ষেত্রে অবৈধ শ্রমিক পাওয়া যাবে তাদেরও শাস্তির আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। অপরদিকে যে সকল প্রবাসী ভ্রাম্যমাণ ব্যবসাসহ বিভিন্ন প্রকার স্বাধীন পেশার সাথে যুক্ত তাদেরও বৈধতা যাচাই করা হবে। বৈধ কাগজপত্র প্রদর্শনে ব্যর্থ হলে তাদেরও একই শাস্তি ভোগ করতে হবে। ড্রাইভিং পেশার সাথে যুক্তদের ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদর্শন করতে হবে।

    প্রসঙ্গত বাদশা আব্দুল্লাহ অবৈধ অভিবাসীদের বৈধ হওয়ার জন্য ৬ মাসের সাধারণ মা ঘোষণা করেছিলেন। এ সাধারণ মার সুযোগ গ্রহণ করে যারা বৈধতা নেননি আগামি ৩ নভেম্বর থেকে তাদের গ্রেপ্তারে দেশব্যাপি বিশেষ অভিযান চালানো হবে। যে সমস্ত শ্রমিকের বৈধ কাগজপত্র আছে কিন্তু ইকামার মেয়াদ শেষ, ইকামা সংক্রান্ত কাগজপত্র সঙ্গে নেই কিংবা পরিদর্শক দলের উপস্থিতি দেখে যারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে তাদেরও জরিমানা করা হবে। হজ ও ওমরার জন্য সৌদি এসেছে কিন্তু ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও সৌদিতে অবৈধভাবে অবস্থান করছে এমন কাউকে অভিযানের সময় পাওয়া গেলে তাকেও শাস্তির আওতায় আনা হবে।