বাগানে কাজে পাঠানোর প্রতিবাদে কর্ম বিরতি

    0
    278

    “কমলগঞ্জের চাম্পারায় চা বাগানে ১১ শ শ্রমিকের সাড়ে ৭ ঘন্টার কর্ম বিরতি,পর্যায়ক্রমে দাবী পূরণের আশ্বাস”

    আমারসিলেট24ডটকম,২৫ডিসেম্বর,শাব্বির এলাহীঃ মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে নিজস্ব চা বাগানে কাজ রেখেও অন্য চা বাগানে কাজের পাঠানোর প্রতিবাদে ১১’শ চা শ্রমিক কাজে না গিয়ে কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে সাড়ে ৭ ঘন্টা কর্ম বিরতি পালন করে। দফায় দফায় আলোচনা শেষে পর্যায়ক্রমে দাবী পূরণের আশ্বাসে বুধবার (২৪ ডিসেম্বর) বেলা দেড়টায় কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে প্রতিবাদী চা শ্রমিকরা কাজে যোগ দেয়।

    বুধবার সরেজমিন ভারত সীমান্তবর্তী চাম্পারায় চা বাগানে প্রতিবাদী চা শ্রমিকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ন্যাশনাল টি কোম্পানী (এনটিসি)-র মালিকানাধীন চাম্পারায় চা বাগানে পর্যাপ্ত কাজ থাকার পরও চা বাগান ব্যবস্থাপক গত দুই মাস ধরে এ বাগানের ২৫ জন চা শ্রমিককে একই কোম্পানীর মদনমোহনপুর ও পাত্রখোলা চা বাগানের কাজে পাঠাচ্ছিলেন। চাম্পারায় চা বাগান থেকে মদনমোহনপুর ও পাত্রখোলা চা বাগান বেশ দুরে বলে ভাল যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় এসব চা বাগানে এসে কাজ করতে চাম্পারায় চা বাগানের শ্রমিকদের বেশ কষ্ট হচ্ছিল। মদনমোহনপুর চা বাগানে কাজ করতে এসে দুই একজন শ্রমিক অসুস্থ হলেও তাদের ভাল চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়নি। তাছাড়া গত ২২ ও ২৩ ডিসেম্বর চাম্পরায় চা বাগনের কিছু শ্রমিক নিজস্ব চা বাগানে চা পাতা উত্তোলনসহ বিভিন্ন কাজ করলেও তাদের কাজকে নথিভুক্ত করা হয়। বুধবার (২৪ ডিসেম্বর) আবার চাম্পারায় চা বাগানের কিছু শ্রমিককে কাজের জন্য পাত্রখোলা চা বাগানে পাঠানোর চেষ্টা করা হলে প্রতিবাদী ১১ শ চা শ্রমিক কাজে যোগ না দিয়ে ভোর ৬ থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত চাম্পারায় চা বাগান কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে কর্ম বিরতি পালন করে।

    এ নিয়ে এনটিসির উপ-মহাব্যবস্থাপক এ এফ এম শাহজাহান, চাম্পারায় চা বাগান ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম, পাত্রখোলা চা বাগান ব্যবস্থাপক শামছুল ইসলাম, ই্সলামপুর ইউপি চেয়ারম্যান সুলেমান মিয়া, চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি শঙ্কর বুনার্জি ও ইউপি সদস্য রাজেশ নুনিয়ার উপস্থিতিতে দফায় দফায় সমঝোতা বৈঠক বসে।

    সমঝোতা বৈঠকে অবশেষে এনটিসি কর্তৃপক্ষ প্রতিবাদী চা শ্রমিকদের ন্যায্য দাবীগুলো পর্যায়ক্রমে পূরণ করার আশ্বাস দিলে বেলা দেড়টায় কর্ম বিরতি প্রত্যাহার করে শ্রমিকরা কাজে যোগ দেয়। চাম্পারায় চা বাগান ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম ও চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি শংকর বুনার্জি কর্ম বিরতি ও অবশেষে প্রত্যাহারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।