অস্ট্রেলিয়াকে রীতিমতো ধসিয়ে দিয়েছে ব্ল্যাক ক্যাপসরা

    0
    478

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৮ফেব্রুয়ারীঃ সাম্প্রতিক ফর্ম, হোম কন্ডিশন বিবেচনায় নিউজিল্যান্ড কিছু স্বস্তিদায়ক অবস্থানে ছিল। কিন্তু  স্বস্তিটা কিউইদের কাছে এতটা কেউ আশা করেছে কিনা বলা কঠিন। অস্ট্রেলিয়াকে রীতিমতো ধসিয়ে দিয়েছে ব্ল্যাক ক্যাপসরা। বিশ্বকাপে নিজেদের সর্বনিম্ন স্কোর সঙ্গী হলো মাইকেল ক্লার্কদের।

    অকল্যান্ডে শনিবার ট্রেন্ট বোল্টের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে ৩২.২ ওভারে ১৫১ রানেই অলআউট হয়ে গেছে অস্ট্রেলিয়া। ১০ ওভার বোলিং করে বোল্ট ২৭ রানে নেন ৫ উইকেট।
    দুই প্রতিবেশী, বিশ্বকাপ আয়োজকের লড়াই অনেক রোমাঞ্চের মঞ্চ হবে এমনই সবার আশা ছিল। নিউজিল্যান্ডের বোলাররা তেমন চাপ-তাপ আসার সময় দিলেন না। তাই জয়ের জন্য কিউইদের টার্গেট ১৫২ রান।

    টস জিতে অস্ট্রেলিয়ার শুরুটা অবশ্য খারাপ ছিল না। ৩০ রানে ফিঞ্চ (১৪) ফিরলেও ওয়াটসন-ওয়ার্নার ৫০ রানের জুটি গড়েন। দুজনই দলীয় ৮০ রানে ফিরেছেন। ওয়ার্নারকে ৩৪ রান করে সাউদির, ওয়াটসন ২৩ রান করে ভেট্টোরির শিকার হন।

    এরপরই মড়ক লাগে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসে। ২৬ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে বসে দলটি। বোল্টের বোলিং তোপে চোখে শর্ষে ফুল দেখলো মাইকেল ক্লার্করা। দুর্দান্ত এক স্পেলে বোল্ট গুঁড়িয়ে দেন অসিদের ব্যাটিং লাইন। ওই স্পেলটা ছিল এমন ৩-২-১-৫।

    ৯৫ রানে স্মিথকে ফেরান ভেট্টোরি। ১৮তম ওভারে ম্যাক্সওয়েল ও মিশেল মার্শকে বোল্ড করেন বোল্ট। সতীর্থদের আসা-যাওয়া দেখতে থাকা অধিনায়ক ক্লার্ক বোল্টের পরের ওভারে ১২ রান করে উইলিয়ামসনের হাতে ক্যাচ দেন। জনসন-স্টার্কদেরও দুঃস্বপ্ন উপহার দিয়ে আউট করেন বোল্ট।

    ১০৬ রানে ৯ উইকেট হারানো অস্ট্রেলিয়া দেড়শো পার হয়েছে ব্র্যাড হ্যাডিনের ব্যাটে। প্যাট কামিন্সের সঙ্গে ৪৬ রানের জুটি গড়েন তিনি দশম উইকেটে। কোরি অ্যান্ডারসনের বলে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে হ্যাডিন ইনিংস সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন। ভেট্টোরি-সাউদি ২টি করে উইকেট নেন।