আজ মানবাধিকার দিবসে বিএনপি ও সমমনাদের নানা কৌশলে মানববন্ধন কর্মসূচি

0
51

আমার সিলেট ডেস্ক: আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে আজ ঢাকাসহ সারা দেশে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করবে বিএনপি ও তাদের সমমনা বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা সহ রাজনৈতিক সংগঠনগুলো। এবার পরিচিত মুখ নয় এবং রাজনীতিতে পুরোপুরি প্রকাশ্যে মাঠে ময়দানে কাজ করে না এমন সমর্থকদের মাধ্যমে দেশব্যাপী বিভিন্ন জেলা উপজেলায় মানববন্ধনের ঘোষণা দিয়েছে দলটি।

বিগত আন্দোলনে নেতা কর্মীদের রাস্তায় জরু হতে নানা ধরনের আন্দোলনের প্রচেষ্টা করেও সুবিধা করতে পারেনি দলটি।গত ২৮শে অক্টোবর নয়া পল্টনে বিএনপি’র মহাসমাবেশে সংঘর্ষের ঘটনার পর এই প্রথম সারা দেশে আবার বড় ধরনের মাঠের কর্মসূচি পালন করতে যাচ্ছে দলটি।
ভিন্ন আঙ্গিকে নিজেদের সমর্থন গোষ্ঠীগুলো বিভিন্ন ব্যানারের মাধ্যমে মানববন্ধন পালন করবে দেশের বিভিন্ন স্থানে।
এর মধ্যে ঢাকায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে বলে ঢাকা মহানগর পুলিশকে অবহিত করেছে দলটি।

এছাড়াও জামায়াত ও যুগপৎ আন্দোলনে থাকা শরিক দল ও সমমনা জোটগুলো একই কর্মসূচি পালন করবে। মানববন্ধন কর্মসূচিতে নিরাপত্তার বিষয় নিয়ে গতকাল ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)তে চিঠি দিয়ে অবহিত করেছে দলটি। এদিকে মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করবে বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ-বিএসপিপি ও ডক্টরস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব। ওদিকে সকাল ১১টায় কাওরান বাজার বিটিএমসি ভবন সামনে (পেট্রো বাংলা ভবনের উল্টো দিকে) মানববন্ধন করবে গণতন্ত্র মঞ্চ। একই সময়ে বিজয় নগর পানির ট্যাংকির সামনে ১২ দলীয় জোট, পুরানা পল্টন আলরাজী কমপ্লেক্সের সামনে জাতীয়তাবাদী সমমনা জোট, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এলডিপি, হাইকোর্ট কদম ফোয়ারার উল্টো দিকে গণফোরাম ও পিপল্‌স পার্টি, বিজয় নগর পানির ট্যাংকির সামনে গণঅধিকার পরিষদ (নুর), জাতীয় প্রেস ক্লাবের উল্টো দিকে গণতান্ত্রিক বাম ঐক্য, পুরানা পল্টন দলীয় অফিসের সামনে গণঅধিকার পরিষদ (রেজা কিবরিয়া), জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্রঅধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, বেলা ১২টায় তোপখানা রোড মেহেরবা প্লাজার সামনে লেবার পার্টি, বেলা ৩টায় বিজয় চত্বর বিজয় নগর ৭১ হোটেলের সামনে এবি পার্টি মানববন্ধন করবে।

মানববন্ধন নিয়ে বিএনপি’র প্রস্তুতি
এদিকে প্রশাসনের কড়াকড়ির মুখে দীর্ঘ ৪২ দিন পর প্রকাশ্যে মাঠে নেমে কর্মসূচি বাস্তবায়নকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছে বিএনপি। গ্রেপ্তার হয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ বেশির ভাগ সিনিয়র নেতা কারাগারে। অনেকে মামলার আসামি হয়ে কৌশলী অবস্থানে আছেন। তার ওপর প্রশাসনের তরফ থেকে বলা হয়েছে, যাদের বিরুদ্ধে মামলার পরোয়ানা রয়েছে তাদের গ্রেপ্তার করা হবে।

সেক্ষেত্রে পদধারী নেতাদের কর্মসূচিতে অংশ নিলে গ্রেপ্তারের আশঙ্কা রয়েছে। মানববন্ধন কর্মসূচি বাস্তবায়নে গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার দু’দফা ভার্চ্যুয়ালি বৈঠক করেন ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি’র নেতারা। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা জানিয়েছেন, কর্মসূচি বাস্তবায়নে বৈঠকে কয়েকটি কৌশল নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ঢাকার দুই মহানগরের পদধারী ও পরিচিত যেসব নেতার বিরুদ্ধে মামলা ও পরোয়ানা রয়েছে তাদেরকে সতর্ক হয়ে কর্মসূচিতে অংশ নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। আর যাদের বিরুদ্ধে মামলা নেই কিংবা পরিচিত মুখ নন তাদেরকে সক্রিয়ভাবে অংশ নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রতিটি ওয়ার্ড থেকেই বিএনপি কর্মীদের আসার জন্য বলা হয়েছে। এছাড়া গুম-খুন ও কারাবন্দি নেতাদের স্বজনদেরও কর্মসূচিতে অংশ নিতে বলা হয়েছে। মানববন্ধনে প্রধান অতিথি হিসেবে দলের স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য উপস্থিত থাকতে পারেন বলে জানা গেছে।
শহীদ বুদ্ধিজীবী ও বিজয় দিবসে স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানাবে বিএনপি
এদিকে শহীদ বুদ্ধিজীবী ও মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বুদ্ধিজীবী কবরস্থান ও জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানাবে বিএনপি। বিএনপি’র মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আগামী ১৪ই ডিসেম্বর সকাল ৮টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয় থেকে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধের উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ দলটির সিনিয়র নেতারা। এছাড়া মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আগামী ১৬ই ডিসেম্বর সকাল ৮টায় মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে জাতীয় স্মৃতিসৌধের উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ দলটির সিনিয়র নেতারা। সেখান থেকে সকাল ১০টায় রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কবরে শ্রদ্ধা জানাবেন স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ দলটির নেতাকর্মীরা।