আমরাও সরকারে থাকাবস্থায় এমন বলেছিলামঃফখরুল

    0
    209

    আমার সিলেট  24 ডটকম,০৪নভেম্বরঃ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেছেন, সংলাপ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী জনগণকে বিভ্রান্ত করছেন। প্রধানমন্ত্রী একেক সময় একেক রকম কথা বলছেন। আমরা সর্বদলীয় সরকার নিয়ে আলোচনা করতে চাই না। এজন্য সরকারকে আন্তরিকতা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। এটা ব্যক্তিগত পর্যায়ের কোনো ব্যাপার নয়। এ সংকট নিরসন রাষ্ট্রীয়ভাবেই করতে হবে। আজ সোমবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনের দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ১৮ দলের ডাকা ৬০ ঘন্টার হরতালের শুরুতেই মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।
    সংলাপ প্রসঙ্গে মির্জা ফকরুল বলেন, নির্বাচনী কাউন্ট ডাউন শুরু হয়েছে। যদি তারা (সরকার) একটি সুর্নিদিষ্ট তারিখ নির্ধারণ করেন এবং নিদর্লীয় সরকারের বিষয়ে আলোচনায় রাজি থাকেন তাহলেই আমরা সংলাপে বসব। তিনি বলেন বর্তমান সরকারের ক্ষমতায় থাকার নৈতিক অধিকার নেই। সরকার কীভাবে ক্ষমতায় আছে আমরা বুঝি না। আমরা যতটুকু সংবিধান বুঝি, রাজনীতি বুঝি তাতে এ সরকারের ক্ষমতায় থাকার আর কোনো নৈতিক অধিকার নেই।
    গতকাল রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলের উদ্দেশে বলেছেন, সর্বদলীয় সরকার গঠনের সময় আপনারা কোন কোন মন্ত্রণালয় চান, সেটা বলুন।সংলাপের পথ এখনো খোলা আছে প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের বিষয়ের প্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিরোধী দলে থাকাবস্থায় তিনি ৯৪ থেকে ৯৬ সালে ১৭৩দিন হরতাল দিয়েছিলেন, অসংখ্য মানুষকে হত্যা করেছিলেন। কিন্তু এখন তারা হরতাল প্রত্যাহার করে আলোচনায় বসার কথা বলছেন। আসলে তারা সংলাপ ও সমঝোতা চান না। প্রধানমন্ত্রী ধূম্রজাল সৃষ্টি করছেন। আমরা সরকারে থাকাবস্থায়ও এমন কথা বলেছিলাম। সংলাপ ও সমঝোতার মাধ্যমে বিএনপি চলমান সমস্যার সমাধান চায়, সংলাপ নিয়ে সরকার জনগণকে বিভ্রান্ত করতে ধূম্রজাল সৃষ্টি করছে। সুনির্দিষ্ট তারিখ ও নির্দলীয় সরকারের বিষয়ে আলোচনা হলে আমরা সংলাপে রাজি।
    ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে মহাসচিব পর্যায়ে বৈঠক প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, বিরোধী দলীয় নেতা তাদের প্রস্তাবের রাজি হয়েছেন, কিন্তু প্রধানমন্ত্রী কি রাজি হয়েছেন? উল্টো তারা যেভাবে কথা বলছেন তাতে ধীরে ধীরে সমঝোতার পথ বন্ধ হয়ে আসছে। তিনি সরকারকে সংলাপের জন্য আন্তরিকতার সঙ্গে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান।
    বিএনপির এ মুখপাত্র বলেন,বিএনপি প্রাণহানি পছন্দ করে না, সরকার প্রাণহানি ঘটাচ্ছে। সরকারকে জিজ্ঞাসা করুন তারা আর কত গুলি চালাবে ।সরকার গায়ের জোরে ক্ষমতায় আছে বলেও দাবি করেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব।