চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পর্কের অভিযোগ

    0
    236

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৫মার্চ,মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়াঃ সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন কর্তৃক তারই বাড়ির কাজের মেয়ে ৫ মাসের অন্তঃসত্বা হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হওয়ার পর থেকে ব্যাপাক তোলপাড় হচ্ছে। কাজের মেয়ের  নকল নাম “টি বেগম” (১৭)। সে উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের গুটিলা গ্রামের  মেয়ে। মেয়ের পরিবার ও স্থানীয়রা জানায়,টি বেগম চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিনের বাড়িতে দীর্ঘদিন যাবত কাজ করছে। সেই সুবাধে দুজনের মধ্যে সু-সর্ম্পক গড়ে উঠে।

    কিন্তু চেয়ারম্যান বিবাহিত,তার বিয়ের উপযুক্ত মেয়ে-ছেলে রয়েছে। তাদের অগোচরে কাজের মেয়ের সাথে শারীরিক মেলা  মেশা শুরু করেন তিনি। এ ঘটনায়  মেয়েটি  ৫ মাসের অন্তৎসত্বা হয়ে পড়লে চেয়ারম্যান জামাল সুকৌসলে তাকে পার্শ্ববর্তী মারাম গ্রামের বিল্লাল মিয়ার ছেলে তারা মিয়ার কাছে সবকিছু গোপন রেখে বিয়ে দেয়। পরবর্তীতে তারা মিয়া মেয়েটির ৫ মাসের অন্তঃসত্বা হওয়ার বিষয়টি জানতে পেরে তাকে তালাক দেয়।

    এ ঘটনায়  মেয়েটি যাবতীয় ঘটনা তার বাবা-মাকে জানালে তারা এনিয়ে চিন্তায় পড়ে যায়। এমতাবস্থায় এলাকাবাসীর গুঞ্জনের মুখে পড়ে চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন তাকে বিয়ে করবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। এব্যাপারে জানতে চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিনের ব্যক্তিগত মোবাইলে বারবার কল করার পরও তিনি ফোন রিসিভ করছেন না। তবে এলাকাবাসী চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিনের দ্বিতীয় বিয়ের দাওয়াত খাওয়ার প্রহর গুনছে। এঘটনায় পুরো উপজেলায় ব্যাপার তোলপাড় সৃষ্টি হচ্ছে।