ওরস বন্ধের দাবীতে থানায় অভিযোগঃসংঘর্ষ

    0
    210

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,ফেব্রুয়ারী,এস.এম সুলতান খানঃ চুনারুঘাটে কালা-মানিক শাহ ওরস নিয়ে এলাকার দু’পক্ষের মাঝে সংঘর্ষ মাজারের আসবাবপত্র তছনচ, পীর সেলিম উদ্দিনের কাফেলার স্থান ভাংচুর। ওরস বন্ধের দাবীতে এলাকাবাসীর পক্ষে পীর শাহ সৈয়দ সেলিম উদ্দিন সহ যৌথ স্বাক্ষরে চুনারুঘাট থানায় বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। থানার ওসি (তদন্ত) ইকবাল আহমেদ এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ শনিবার বিকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নস্থ কুমারকাদা নামক স্থানে কালা-মানিক শাহ’র আস্তানা রয়েছে।

    ওই আস্তানাকে ঘিরে দীর্ঘদিন যাবত ১লা ফাল্গুন ওরস মাহফিল করে থাকে ভক্তবৃন্দরা। আস্তানার খাদেম মফিজ উল্লা, সাবেক মেম্বার আঃ হাই, আব্দুল হাই ওরফে বোক্কা ফকির সহ কিছু স্বার্থান্বেষী লোক উক্ত ওরসের আয়োজন করে। ঐ ওরস অনুষ্ঠানে উল্লেখিত ব্যক্তিদেরকে বড় অংকের উৎকোচ দিলেই কাফেলার স্থান পাওয়া যায়। উৎকোচ নিয়ে সেলিম উদ্দিনের সাথে খাদেম মফিজ উল্লা, সাবেক মেম্বার আঃ হাই, আব্দুল হাই ওরফে বোক্কা ফকির সহ কমিটির লোকজন বাকবিতন্ডা শুরু করে এবং পীর সেলিম উদ্দিনের কাফেলার স্থান ভেঙ্গে তছনচ করে দেয়।

    ওই ওরসের নামে প্রতি বছরই উঠতি বয়সের নারী, জোয়া, মদ, গাজা সহ বিভিন্ন অসামাজিক কাজের আস্তানা গড়ে উঠে। ফলে বিপথগামী হয়ে পড়ে এলাকার তরুণ সমাজ। ওরস বন্ধের দাবীতে পীর শাহ সৈয়দ সেলিম উদ্দিন সহ এলাকাবাসীর যৌথ স্বাক্ষরে চুনারুঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। উল্লেখ্য যে, এ সমস্ত অসামাজিক কাজ ও ওরস বন্ধের দাবীতে পূর্বেও এলাকার লোকজন প্রশাসনের নিকট লিখিত অভিযোগ সহ আদালত ১৪৪ ধারা জারী করলেও তার কোন সমাধান হয়নি অদ্যাবধি পর্যন্ত। ওরস নিয়ে যে কোন সময় এলাকার দু’পক্ষের মাঝে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে।