কমনওয়েলথে মানুষকে দারিদ্র্যমুক্ত করার আহ্বান

    0
    208

    আমার সিলেট  24 ডটকম,১৫নভেম্বরঃ কমনওয়েলথের  সভাপতি অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবোট কমনওয়েলথভুক্ত ৫২টি দেশের প্রতি তাদের প্রায় ১০০ কোটি মানুষকে দারিদ্র্যমুক্ত করার  আহ্বান জানিয়েছেন। খবর বাসসের। আজ শুক্রবার শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোতে নিলুম পোকুনা মহিন্দা রাজাসপক্ষে থিয়েটারে কমনওয়েলথ রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানদের দুদিনব্যাপী সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে তিনি এ আহ্বান জানান।সংস্থার কৌশলগত নির্দেশনা পেতে নীতিমালা প্রণয়নে কমনওয়েলথ নেতারা প্রতি দুই বছর পরপর কমনওয়েলথ হেডস অব গভর্নমেন্ট সিটিংয়ে (সিএইচওজিএম) মিলিত হন। সমন্বিত নীতি ও উদ্যোগ গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিতে এই বৈঠকে বৈশ্বিক ও কমনওয়েলথ বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। প্রিন্স অব ওয়েলস চার্লস উইলিয়াম, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টনি অ্যাবোট ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ কমনওয়েলথের ৫২টি সদস্য দেশের প্রেসিডেন্ট, সুলতান, ভাইস প্রেসিডেন্ট, প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা এই সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন। তবে গণতন্ত্র উত্তরণে ব্যর্থ হওয়ায় কমনওয়েলথে মালদ্বীপের সদস্যপদ স্থগিত রেখেছে।

    কমনওয়েলথ দেশগুলোর নেতাগন আসন গ্রহণ করলে শ্রীলঙ্কার জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু হয়। শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ রাজাসপক্ষে উদ্বোধনী ভাষণ দেন। তিনি বলেন, কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলো আজ ভাষা, শিল্পকলা ও বিজ্ঞানের অভিন্ন অংশীদারত্ব ভোগ করছে, যা যথেষ্ট আন্তসম্পর্কযুক্ত এবং আমাদের জনগণের অনেক ত্যাগ ও কঠোর পরিশ্রমের সুবাদে এই সাফল্য এসেছে। তিনি আরও বলেন, আমাদের মধ্যে অনেক ভিন্নতা থাকা সত্ত্বেও আমরা অভিন্ন অনেক কিছু পেয়েছি। আমাদের জনগণের অভিন্ন মঙ্গলার্থে আমরা একত্রে কাজ করে যাচ্ছি। কমনওয়েলথ সেক্রেটারি জেনারেল কমলেশ শর্মা উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তব্য দেন।এদিকে আজ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিএইচওজিএমের দুটি এক্সিকিউটিভ সেশনে যোগ দিয়েছেন  এবং শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ রাজাসপক্ষে ও নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জন কিইর সঙ্গে বৈঠক করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠক শেষ করে দেশের উদ্দ্যেশে রওয়ানা করেছেন।