কমলগঞ্জে ব্যাংক ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে হয়রানীর অভিযোগ

    1
    782

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০৪মার্চ,শাব্বির এলাহীঃ মৌলভীবাজারে কমলগঞ্জে সোনালী ব্যাংক ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে ব্যাংক গ্রাহকদের হয়রানী ও দুর্ব্যবহারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক সহ বিভিন্ন দপ্তরে গ্রাহকদের পক্ষে লিখিত অভিযোগ প্রেরণ করা হয়েছে।
    লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সোনালী ব্যাংক কমলগঞ্জ শাখায় ব্যবস্থাপক হিসেবে সঞ্জয় কুমার দেব যোগদান করার পর থেকে ব্যাংক শাখায় সঞ্চয়ী ও এসএমই ঋণ গ্রহীতারা প্রতিনিয়ত হয়রানী ও দুর্ব্যবহারের শিকার হচ্ছেন। সম্প্রতি কয়েকজন সঞ্চয়ী ব্যাংক গ্রাহক নাম প্রকাশ না করার শর্তে অভিযোগ করেছেন, অত্র শাখায় ছেড়া টাকা পরিবর্তন সহ নতুন সঞ্চয়ী হিসাব খুলতে গেলে নানা অজুহাতে ব্যাংক গ্রাহকদেরকে ব্যাংক বিমূখ করছেন।

    এ নিয়ে প্রায়শই ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে বাক বিতন্ডা করতে হয়। যার দরুন অত্র শাখা আমানতের দিক থেকে ও শাখার নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা পূরণে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এদিকে সোনালী ব্যাংক কমলগঞ্জ শাখার নিয়মিত এসএমই ঋণ গ্রহীতা মের্সাস রেমিন এ্যাসোসিয়েট (হিসাব নং ৫০-১৫৭) সুনামের সাথে লেনদেন করে আসছেন। সম্প্রতি ঋণের মেয়াদ শেষ হলে ঋণ গ্রহীতা ঋণ নবায়নের জন্য ব্যবস্থাপকের সাথে যোগাযোগ করলে ব্যবস্থাপক অসৎ উদ্দ্যেশ্যে নানা টালবাহানা করতে থাকেন। ঋণ গ্রহীতাকে নিজে কোন সদুত্তর না দিয়ে মৌলভীবাজার অফিসে কর্মরত জনৈক অঞ্জন বাবুর সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।

    এছাড়া অভিযোগে আরো জানা যায়, গত ডিসেম্বর মাসে প্রধান কার্যালয়ের অডিট টিমকে প্রভাবিত করে অনেক অসত্য তথ্য পরিবেশন করে ব্যাংকের সুনাম বিনষ্ট করছেন। তাছাড়া ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে এসএমই ঋণ বিতরণে উৎকোচ গ্রহণের অভিযোগ পাওয়া যায়।

    তাছাড়া অত্র ঋণ গ্রহীতার স্বামীকে নিয়ে নানা ব্যক্তিগত কুটুক্তি করেন। যার দরুন গ্রাহক তার সম্মানহানির অভিযোগ এনে সম্প্রতি সোনালী ব্যাংক কমলগঞ্জ শাখা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক সহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ প্রেরণ করেছেন।
    এ ব্যাপারে সোনালী ব্যাংক কমলগঞ্জ শাখা ব্যবস্থাপক সঞ্জয় কুমার দেব এর বক্তব্য জানতে একাধিকবার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।