কিশোরকে কুপিয়ে জখম ও পায়ের রগ কাটার অভিযোগে ৬জনের বিরুদ্ধে মামলা!

0
55

সুজয় বকসী,নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলে কিশোর আরিয়ানকে বাসা থেকে তুলে নিয়ে কুপিয়ে জখম ও পায়ের রগ কাটার ঘটনায় জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক, এক শিক্ষিকাসহ ৬জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আহতের দাদী মাসুমা বেগম বাদী হয়ে সদর থানায় এ মামলা করেছেন। আসামীরা হলো জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদরের আউড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আউড়িয়া গ্রামের আকবর সিকদারের ছেলে এস এম পলাশ, শিব শংকর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক শহরের আলাদাতপুর এলাকার সৈয়দ খন্দকারের মেয়ে রুমানা পারভীন কেয়া ও তার ছেলে মোস্তাহিন হাবিব এলহান,শহরের দক্ষিন নড়াইলের আফছার শেখের ছেলে তুষার শেখ, নুর ইসলামের ছেলে রয়েল শেখ ও একই এলাকার নিশি।
মামলার বিবরণে উল্লেখ করা হয়েছে, আরিয়ান মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে বাসায় ঘুমিয়ে থাকাবস্থায় জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সাধারণ সম্পাদক সদরের আউড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এস এম পলাশ, শিক্ষক রুমানা পারভীন কেয়া, তুষার শেখসহ ৬ জন তাদের (আরিয়ান)বাড়িতে প্রবেশ করে জোরপূর্বক একটি প্রাইভেট কারে পৌরসভার সীমান্তবর্তী কাড়ার বিলে একটি মাছের ঘেরের পাড়ে নিয়ে যায়। সেখানে তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে আরিয়ারকে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় কুপিয়ে জখম করে এবং ডান পায়ের রগ কেটে ফেলে।
মামলার বাদী মাসুমা বেগম বলেন, আরিয়ান শিক্ষক রুমানা পারভীন কেয়ার প্রতিহিংসার শিকার। হত্যার উদ্দেশ্যে তাকে অপহরণ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় কুপিয়ে জখম ও রগ কেটে দেয়া হয়। আমি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার জানাই।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নড়াইল শহরের আলাদাতপুর এলাকার বাসিন্দা শিক্ষক রুমানা পারভীন কেয়ার স্কুল পড়–য়া কন্যার সাথে আরিয়ানের সম্প্রতি প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আরিয়ানের পরিবারের চেয়ে মেয়ের আর্থিক অবস্থা ও সামাজিক মর্যাদা বেশী থাকায় বিষয়টি মেয়ের পরিবার ও আতœীয় স্বজন ভালভাবে নেয়নি। একারণেই এমন ঘটনা ঘটেছে।
আরিয়ান শহরের মহিষখোলা এলাকার মোহাম্মদ মোল্যার পূত্র। ২০২৪ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী এবং ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় কর্মী। বর্তমানে সে বেসরকারি যশোর পংগু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
এ বিষয় সম্পর্কে জানতে শিক্ষক রুমানা পারভীন কেয়াকে ফোন দিলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
এ বিষয়ে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আউড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এস এম পলাশ বলেন, আমি নড়াইল-০২ আসনের এমপি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার সঙ্গে থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আদর্শকে বাস্তবায়িত করছি। ‘আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মামলা দেওয়া হয়েছে। এটা মেনে নিতে পারছি না।
জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক স্বপ্নীল শিকদার নীল বলেন, হামলার শিকার আরিয়ান ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তাকে যারা এভাবে আহত করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
নড়াইল সদর থানার ওসি ওবাইদুর রহমান বলেন, বুধবার (৬ ডিসেম্বর) রাত ১১টার দিকে এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলা নং-১১ তারিখ ০৬.১১.২০২৩। আসামিদের ধরতে অভিযান পরিচালিত হচ্ছে।