খাদ্যে ভেজাল মেশালে পাঁচ বছর জেল এবং পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা

    0
    231

    আমারসিলেট24ডটকম,১০ সেপ্টেম্বর  :  খাদ্যে ভেজাল ও ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্য মেশালে সর্বোচ্চ পাঁচ বছর জেল এবং পাঁচ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রেখে নিরাপদ খাদ্য আইন, ২০১৩ এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ খসড়ার অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদ সদস্যরা বৈঠকে অংশ নেন।

    সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা সাংবাদিকেদের বলেন, কোন কোন বিষয় খাদ্য নিরাপত্তার জন্য ক্ষতিগর তা আইনে উল্লেখ করা হয়েছে। খাদ্য পরীক্ষা নিরীক্ষা, পরিদর্শন, অপরাধ ও দণ্ডের বিষয়েও বলা আছে।’সর্বনিম্ন চার বছর এবং সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

    আইন ও কারিগরি দিক থেকে এই আইনকে আধুনিক আইন উল্লেখ করে মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, খাদ্য নিরাপত্তার জন্য প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোর কথা বলা হয়েছে।খাদ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে খাদ্য নিরাপত্তা উপদেষ্টা পরিষদ এবং বিশেষজ্ঞদের নিয়ে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ গঠন করা হবে। এই কর্তৃপক্ষকে সমন্বয় এবং কারিগরি কমিটি গঠনেরও ক্ষমতা দেয়া হবে।

    গত ১ জুলাই খাদ্যে ভেজাল ও ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্য মেশানোর দায়ে সর্বোচ্চ সাত বছরের কারাদণ্ডের বিধান রেখে আইন করার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছিল সরকার।দ্বিতীয়বার অপরাধ করলে দ্বিগুণ শাস্তির বিধান রাখা হয়েছিল নীতিগত অনুমোদনে। এতে পাঁচ থেকে ২০ লাখ টাকা জরিমানার বিধানও রাখা হয়েছিল।

    এই আইনের আওতায় ভ্রাম্যমাণ আদালত ও ফৌজদারি আদালতে ২২ ধরনের অপরাধের বিচার করার কথা বলা হয়েছে।খাদ্য নিয়ে মিথ্যা বিজ্ঞাপন দিলে দুই বছর কারাদণ্ড, নিবন্ধন ছাড়া বিপণন করলে দুই বছর, ছোঁয়াচে ব্যাধি আক্রান্ত কারো দিয়ে খাদ্য দ্রব্য বিক্রি করলে তিন বছর কারাদণ্ডসহ বিভিন্ন অপরাধে বিভিন্ন ধরনের সাজার বিধান রাখা হয়েছে।এটি এখন সংসদে যাবে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এই আইন বাস্তবায়নের ফলে দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবে।