গণজাগরণ মঞ্চের এক কর্মীকে কুপিয়ে জখম

    0
    234

    আমারসিলেটটোয়েন্টিফোর,০৭ সেপ্টেম্বর  : রাজধানীর পরীবাগে আরিফ নূর নামে গণজাগরণ মঞ্চের এক কর্মীকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল রাত সাড়ে ১১টার দিকে পরীবাগ ওভার ব্রিজের নিচে তার ওপর হামলা হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। হামলার জন্য বরাবরের মত জামায়াত-শিবিরকে দায়ী করেছে মঞ্চের সংগঠকরা।

    মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি ছুরিকাঘাতের জখম নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন আরিফ। তবে তিনি আশঙ্কামুক্ত বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আরিফ যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি ও জামায়াত নিষিদ্ধের দাবিতে আন্দোলনে সক্রিয়।
    ঢামেক ফাঁড়ির পুলিশ পরিদর্শক মোজাম্মেল হক বলেন, এক বন্ধুর বাসা থেকে বের হয়ে ওভার ব্রিজের নিচে যাওয়ামাত্র আরিফের সামনে একটি মাইক্রোবাস থামে।মাইক্রোবাস থেকে চার-পাঁচজন বেরিয়ে এসে আরিফকে কোপাতে থাকে। পাশের সিএনজি স্টেশনের লোকজন তা দেখে এগিয়ে এলে হামলাকারীরা সটকে পড়ে বলে জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।
    গণজাগরণ মঞ্চের মঞ্চের অন্যতম সংগঠক মারুফ রসুল বলেন, হামলাকারীরা প্রথমে শাহবাগের আন্দোলনের বিভিন্ন স্লোগান নিয়ে আরিফকে ব্যঙ্গ করে। আরিফ তখন দৌড় দিলে পেছন থেকে তাকে আঘাত করা হয়। রক্তাক্ত আরিফকে প্রথমে পান্থপথের হেলথ এন্ড হোপ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

    আরিফের কাছে মোবাইল ফোন ও টাকা থাকলেও তার কিছুই খোয়া যায়নি বলে ওই পুলিশ কর্মকর্তা জানান। আরিফকে দেখতে হাসপাতালে গিয়ে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার সাংবাদিকদের বলেন, এ হামলার প্রতিবাদে শনিবার সন্ধ্যায় শাহবাগে মশাল মিছিল হবে। হামলার জন্য জামায়াত-শিবিরকে দায়ী করে মারুফ বলেন, যেহেতু হামলার সময়ে গণজাগরণ মঞ্চের স্লোগান নিয়ে ব্যাঙ্গ করা হয়েছিল, সুতরাং আমরা নিশ্চিত যে এটি জামায়াত-শিবিরের কাজ।

    যুদ্ধাপরাধী আব্দুল কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় প্রত্যাখ্যান করে তার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে গত ফেব্র“য়ারিতে গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন শুরু হয়। এর কয়েকদিনের মাথায় মিরপুরে নিজ বাসার সামনে খুন হন মঞ্চের অন্যতম কর্মী ব্লগার রাজীব আহমেদ হায়দার। এছাড়াও বেশ কয়েকজন ব্লগার হামলার শিকার হন বিভিন্ন স্থানে।