গুগল অনুবাদে ৬৫ হাজার বাংলা শব্দ যোগ শিক্ষার্থীদের

    0
    246

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,২৭ফেব্রুয়ারীঃ ট্রান্সেলশন-এ-থন অনুষ্ঠানের যোগ দিয়ে গত তিন দিনে গুগল অনুবাদে ৬৫ হাজার বাংলা শব্দ যোগ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১৩ হাজার বাংলা অনুবাদ যোগ করেন ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র তারেক মাহমুদ। এছাড়া পাঁচ হাজার ১০০ শব্দ যোগ করেন এসএম রিদওয়ান এবং চার হাজার ৬৫ শব্দ যোগ করেন এসএম সাজ্জাদ হোসেন।

    এদের মতো সর্বনিম্ন এক হাজার ইংরেজি শব্দের বাংলা অনুবাদ যোগ করে বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে ৬০ টাকার বিশেষ সম্মাননা স্বারক পেয়েছেন অংশগ্রহণকারীরা।
    বৃস্পতিবার ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের কম্পিউটার ল্যাবে গুগল টি শার্টের সঙ্গে তাদের হাতে এই
    পুরস্কার তুলে দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক হাকিম আরিফ।

    তিনি বলেন “আমি খুবি আনন্দিত যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগ তিন দিনে ৬৫ হাজার অনুবাদ যোগ করছে। আমরা গুগল ট্রান্সলেশনে বাংলাকে সমৃদ্ধ করার কাজটি সারা বছর করে যাব। আমাদের বাংলা ভাষাকে সারা বিশ্বে তুলে ধারার দায়িত্ব আমাদেরই। তাই আমরা এ কার্যক্রম চালিয়ে যাব।”

    জিডিজি বাংলার ব্যবস্থাপক জাবেদ সুলতান পিয়াস বলেন, “শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৬৫ হাজার বাংলা শব্দ যোগ হওয়ার বিষয়টি খুবই আশাব্যঞ্জক। তরুণদের এমন অংশগ্রহণই পারে ইন্টারনেটে বাংলাকে আরো সমৃদ্ধ করতে।”

    তিনি জানান, গুগল অনুবাদে শব্দযোগের এই কার্যক্রম চলবে পয়লা বৈশাখ পর্যন্ত। পয়লা বৈশাখে যারা সবচেয়ে বেশি শব্দযোগ করবেন তাদের পুরস্কৃত করা হবে।

    অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা বিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মাশরুর ইমতিয়াজ, শান্তা তাওহিদা, খন্দকার খায়রুন্নাহার, জেনিফার জাহান, ই-কমার্স সাইট এসো ডট কমের ম্যানেজার এডমিন খাইরুল বাশার, জিডিজি বাংলার কমিউনিকেশন অ্যাসোসিয়েট রাহিতুল ইসলাম রুয়েলসহ অনেকে।

    গত ডিসেম্বর মাসে ‘সীমানা ছাড়িয়ে বাংলা’ শ্লোগানে ইন্টারনেটে বাংলা ভাষাকে ছাড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানিয়ে শুরু হয় বাংলার জন্য বিশেষ গুগল ডেভেলপারস্ গ্রুপ জিডিজি বাংলার কার্যক্রম। কার্যক্রমরে অংশ হিসবে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ‘গুগল ট্রান্সলেশন এ-থন’ নামে এই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়। গুগল ডেভলপার গ্রুপ বাংলার (জিডিজি বাংলা) উদ্যোগে এ আয়োজন চলে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

    পুরো আয়োজনে সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন), ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান এসো ডট কম এবং হাই-ফাই পাবলিক ডটকম