গোলাম আযমের জানাজা ঘিরে রাজধানীতে কড়া নিরাপত্তা

    0
    215

    আমারসিলেট24ডটকম,২৫অক্টোবরঃ ১৯৭১ সালের শীর্ষ যুদ্ধাপরাধী ও জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আযমের নামাজে জানাজাকে ঘিরে বায়তুল মোকাররমসহ রাজধানী জুড়ে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। আজ শনিবার সকাল থেকে বায়তুল মোকারম এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। এছাড়া আশপাশের উঁচু ভবনের ছাদ থেকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে, জলকামান, এপিসি, সাজোয়া যানসহ গুরুত্বপূর্ণ সরঞ্জাম।
    ডিএমপির যুগ্ম-কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেছেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটনানোর চেষ্টা করলে জিরো টলারেন্স দেখানো হবে। পুরানা পল্টন এলাকায় জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী এবং ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় অফিস রয়েছে। এ এলাকায় জামায়াত শিবিরের শক্ত অবস্থান রয়েছে। তাই দৈনিক বাংলার মোড়সহ আশপাশের এলাকায় নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। এর আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (বরখাস্ত) আবদুল্লাহহিল আমান আল আযমী বলেন, শনিবার বাদ জোহর জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। তিনি বলেন, ভাইয়েরা আসতে না পারলেও আজই জানাজা ও দাফন সম্পন্ন হবে।
    এদিকে গোলাম আযমের লাশ তার পৈতৃক বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যাতে না নেয়া হয় সেজন্য দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। পরে গোলাম আযমের প্রতি ঘৃণা জানিয়ে নবীনগর উপজেলা প্রেসক্লাব চত্বরে সমাবেশ করেন তারা। বক্তারা বলেন, যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমকে দাফন করে অনেক রক্তের বিনিময়ে গড়া এ বাংলাদেশের মাটিকে ‘অপবিত্র’ করতে দেয়া যায় না। পরে সেখানে শীর্ষ যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমকে বাংলাদেশে দাফন না করে তার লাশ পাকিস্তানে পাঠিয়ে দেয়ার দাবিও তুলেছে অনলাইন একটিভেট ফোরামসহ কয়েকটি সংগঠন। এ দাবিতে শুক্রবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তারা মানববন্ধনও করে।
    এর আগে শনিবারই গোলাম আযমকে দাফন করার তথ্য নিশ্চিত করেছিলেন মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় তার আইনজীবী এডভোকেট তাজুল ইসলাম। তিনি বলেছিলেন, স্যারের দাফন আজ শনিবার হচ্ছে, এটা নিশ্চিত। তবে বাদ জোহর নাকি বাদ আসর দাফন হবে তা আজ রাতে তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আলোচনার পর ঠিক করা হবে।
    আযমী জানান, বিদেশে অবস্থানরত তার ৫ ভাইয়ের কেউ শনিবারের মধ্যে দেশে পৌঁছাতে পারবেন না। তবে তাদের স্ত্রী সন্তানদের মধ্যে কেউ কেউ আসছেন। গোলাম আযমের লাশ বর্তমানে একটি ফ্রিজিং গাড়িতে মগবাজারের বাসায় রাখা হয়েছে।
    মানবতাবিরোধী অপরাধে ৯০ বছরের সাজা ভোগের মধ্যেই বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ১০ মিনিটে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান গোলাম আযম। ৯২ বছর বয়সী সাবেক এ জামায়াত প্রধানের আরও ৮৯ বছর কারাভোগ বাকি ছিল।
    অপরদিকে পুলিশের একাধিক সূত্র বলেছে, জানাজার নামে কেউ অরাজকতা ও ধ্বংসাত্মক কোনো কার্যক্রম যাতে না হয় সে জন্য আজ পুলিশ সর্বোচ্চ সতর্কাবস্থায় থাকবে। মোড়ে মোড়ে থাকছে দাঙ্গা পুলিশ। যে কোনো ধরনের নাশকতা মোকাবেলায় ডিএমপির ৩২টি স্পর্শকাতর পয়েন্টে কঠোর গোয়েন্দা নজরদারির পাশাপাশি স্ট্রাইকিং ফোর্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে। ডিএমপি সদর দফতর সূত্র জানায়, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের বিপরীতে পল্টনে জামায়াতে ইসলামীর অফিসসহ আশপাশ এলাকা, শাহজাহানপুর মোড় থেকে শাহজাহানপুর রেলগেট, পুরানা পল্টন ও দৈনিক বাংলার মোড় এলাকা থাকছে পুরো নজরদারিতে।