গোয়েন্দাদের তিনটি দল পীরসহ ৬জনকে হতার তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে

    1
    498

    আমারসিলেট24ডটকম,২৩ডিসেম্বরঃ রাজধানী ঢাকার গোপীবাগে রামকৃষ্ণ মিশন রোডে এক পীরসহ ছয়জনকে হত্যার ঘটনার মোটিভ সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত হতে পারেনি গোয়েন্দা পুলিশ। গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম আজ সোমবার নিজের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার মোটিভ সম্পর্কেও তারা এখনো নিশ্চিত হতে না পারলেও সম্ভাব্য কয়েকটি ধারণা সামনে রেখে গোয়েন্দাদের তিনটি দল চাঞ্চল্যকার এ হতাকাণ্ডের তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। পুলিশের ধারণা, ধর্মীয় আদর্শগত বিরোধ অথবা পুরনো শত্রুতা থেকে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হতে পারে। অবশ্য পরিবারের সদস্যদের ধারণা, এটা জঙ্গিবাদী এবং উগ্রপন্থীদের কাজ। ওই বাসা থেকে কিছু জিনিস খোয়া গেলেও এ ঘটনাকে ডাকাতি বলে মনে করছে না পুলিশ। ঘটনার পর ওই বাড়ির আশেপাশের এলাকা থেকে ছয়জনকে আটক করা হলেও জিজ্ঞাসাবাদের পর তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

    পুলিশ বলছে, হত্যাকারীরা মুরিদ সেজে ওই বাসায় ঢোকে এবং পীর লুৎফর রহমান ফারুক, তার ছেলে সারোয়ার ইসলাম ফারুক ওরফে মনির, পীরের খাদেম মঞ্জুর আলম মঞ্জু, মুরিদ মোঃ শাহিন, রাসেল ও মুজিবুল সরকারকে গলা কেটে হত্যা করে। গত শনিবার সন্ধ্যায় রামকৃষ্ণ মিশন রোডের ৬৪/৬ নম্বরে চারতলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় এই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

    যুগ্ম কমিশনার মনিরুল এর আগে বলেছিলেন, ওই হত্যাকাণ্ডে ১০ থেকে ১২ জন অংশ নিয়েছিল বলে তারা ধারণা করছেন। তবে আজ সোমবার তিনি বলেন, অন্তত ৮ জন এই হত্যায় জড়িত ছিল বলে পুলিশ মোটামুটি নিশ্চিত হয়েছে। এ ঘটনায় অজ্ঞাতপরিচয় ১০-১২ জনকে আসামি করে ওয়ারী থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন লুৎফরের ছোট ছেলে আবদুল্লাহ আল ফারুক। এই হত্যাকাণ্ড মামলাটির তদন্ত করছে গোয়েন্দারা।