চট্টগ্রামে থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক-সরঞ্জাম উদ্ধার

    0
    361

    “সরকার যদি জামাত-শিবিরের নাশকতা ধমন করতে চান তাহলে  সর্ব প্রথম আওয়ামীলীগের ভিতরে শুদ্ধি অভিযান চালাতে হবে অন্যথায় চট্রগ্রাম থেকে সারা দেশে নাশকতার কাজ তারা চালিয়ে যাবে যা আগামিতে ভয়াবহ রুপ ধারন করবেন”

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,০১ মার্চঃ চট্টগ্রামের হালিশহরে একটি বাড়ি থেকে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক, বোমা ও অস্ত্রসহ তিনজনকে আটক করেছে র‌্যাব। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত নগরীর হালিশহর থানাধীন গোল্ডেন কম্পেক্সেস একটি এপার্টমেন্টে অভিযান চালিয়ে এসব অস্ত্র ও বোমা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত অস্ত্র ও গোলাবারুদের মধ্যে রয়েছে- ৭৬টি শক্তিশালী তাজা বোমা, ১৫০ কেজি বিস্ফোরক দ্রব্য, ২৪ রাউন্ড সর্টগানের গুলি, বিপুল পরিমান ইকেট্রিক তার, ব্যাটারি, মাস্ক,গ্লাসসহ রোমা তৈরির ৩০ রকমের সরঞ্জাম।

    আটককৃতরা হলেন, মো. ফয়জুল, মো. আব্দুল হাই এবং মোছা. রহিমা খাতুন। শনিবার দুপুরে র‌্যাবের এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ বলেন, ‘জঙ্গিরা দেশকে আফগানিস্তান বানানোর ষড়যন্ত্র হিসেবে এই বিপুল পরিমান অস্ত্র ও বিস্ফোরক মজুদ করেছিল।’ তিনি আরো বলেন, ‘যে পরিমান অস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে তা দিয়ে সেনাবাহিনীর একটি প্লাটুন চালানো সম্ভব।’ র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক কর্নেল মিফতাহ উদ্দিন আহমেদ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

    জামাত-শিবির ও বি,এন,পির আসল হোতারা চট্রগ্রাম এর সন্দ্বীপ, সীতাকুন্ড, মিরেশরাই থানা এলাকায় তাদের আসল ঘাটি  স্থাপন করে সেখান থেকে পাহাড়ী অঞ্চলে তাদের প্রশিক্ষন চালিয়ে যায়, আগ্রাবাদের মুহুরী পাড়া উত্তরা আবাসিক এলাকা, মিস্ত্রীরি পাড়া মৌলভী পাড়া,দায়পাড়া এদের আস্তানা, সীতাকুন্ডের শিবপুর, বড় দারোগা হাট,চট্রগ্রাম মহানগরের বাকলীয়া চক বাজার বহদ্দার হাট এলাকায় জামাত শিবিরের অবাধে বিচরন, চকবাজার এলাকায় প্রচুর সি,এন,জি ড্রাইভার আছে যারা জামাত-শিবিরের ক্যাডার, তারা জামাতের টাকায় কেনা সি,এন,জি চালিয়ে বিভিন্ন লোকের খবর সংগ্রহ করে থাকেন আর সময় মত তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করেন।

    সীতা্কুন্ডের বড় বড় আওয়ামীলীগ নেতাদের ছেলে, কারো ভাই, কারো আত্মীয় সরাসরি জামাত-শিবিরের সাথে জড়িত আর এদের কারনে  প্রশাসন কোন  ব্যবস্থা গ্রহন করতে পারছেন না, সরকার যদি জামাত-শিবিরের নাশকতা ধমন করতে চান তাহলে  সর্ব প্রথম আওয়ামীলীগের ভিতরে শুদ্ধি অভিযান চালাতে হবে অন্যথায় চট্রগ্রাম থেকে সারা দেশে নাশকতার কাজ তারা চালিয়ে যাবে যা আগামিতে ভয়াবহ রুপ ধারন করবেন।