চুনারুঘাটে কালা-মানিক শাহ’র ওরস নিয়ে সংঘর্ষ

    0
    224

    ওরস বন্ধের দাবীতে থানায় অভিযোগ ও আদালতে মামলা ১৪৪ ধারা 
    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,ফেব্রুয়ারী,ফারুক মিয়া: চুনারুঘাটে কালা-মানিক শাহ ওরস নিয়ে এলাকার দু’পক্ষের মাঝে সংঘর্ষ মাজারের আসবাবপত্র তছনচ, পীর সেলিম উদ্দিনের কাফেলার স্থান ভাংচুর। ওরস বন্ধের দাবীতে এলাকাবাসীর পক্ষে পীর শাহ সৈয়দ সেলিম উদ্দিন সহ যৌথ স্বাক্ষরে চুনারুঘাট থানায় বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। থানার ওসি (তদন্ত) ইকবাল হোসেন ও এস.আই হরিদাস একদল পুলিশ শনিবার বিকাল ৩টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। সংঘর্ষে ১ ঘন্টা ব্যাপী নিয়ন্ত্রণে আনে।

    পুলিশ সূত্র জানা যায়, উপজেলার মিরাশী ইউনিয়নস্থ কালা-মানিক শাহ’র আস্তানা রয়েছে। ওই আস্তানাকে ঘিরে দীর্ঘদিন যাবত ১লা ফাল্গুন ওরস মাহফিল করে থাকে ভক্তবৃন্দরা। আস্তানার খাদেম মফিজ উল্লা, সাবেক মেম্বার আঃ হাই, আব্দুল হাই ওরফে বোক্কা ফকির সহ কিছু স্বার্থান্বেষী লোক উক্ত ওরসের আয়োজন করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে বলে এলাকাবাসীরা জানায়। ঐ ওরস অনুষ্ঠানে উল্লেখিত ব্যক্তিদেরকে বড় অংকের উৎকোচ দিলেই কাফেলার স্থান পাওয়া যায়।

    উৎকোচ নিয়ে পীর সেলিম উদ্দিনের সাথে খাদেম মফিজ উল্লা, সাবেক মেম্বার আঃ হাই, আব্দুল হাই ওরফে বোক্কা ফকির সহ কমিটির লোকজন বাকবিতন্ডা নিয়ে এক পর্যায়ে কথা কাটাকাটি হলে এসময় পীর শাহ সৈয়দ সেলিম উদ্দিন বাধা দিলে কমিটির লোকজনরা জোর পূর্বক উত্তেজিত হয়ে তাহার কাফেলার স্থান ভেঙ্গে তছনচ করে দেয়। ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ প্রায় লক্ষাধিক টাকা। ওই ওরসের নামে প্রতি বৎসরই উঠতি বয়সের নারী, জোয়া, মদ, গাজা সহ বিভিন্ন অসামাজিক কাজের আস্তানা গড়ে উঠে। ফলে বিপথগামী হয়ে পড়ে এলাকার তরুণ সমাজ। ওরস বন্ধের দাবীতে পীর শাহ সৈয়দ সেলিম উদ্দিন সহ এলাকাবাসীর যৌথ স্বাক্ষরে চুনারুঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়।

    উল্লেখ্য যে, এ সমস্ত অসামাজিক কাজ ও ওরস বন্ধের দাবীতে পূর্বেও এলাকার লোকজন হবিগঞ্জ আদালতে বাদী হয়ে প্রায় কয়েকটি লিখিত অভিযোগ সহ আদালত ১৪৪ ধারা জারী করলেও তার কোন এখন পর্যন্তও সুরাহা হয়নি। ওরস নিয়ে যে কোন সময় এলাকার দু’পক্ষের মাঝে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে। এলাকাবাসীরা জানান, প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী করছেন এলাকাবাসীরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছেন।