চুনারুঘাটে মরা খোয়াই নদী দখলের মহোৎসব

    0
    237

    চুনারুঘাট(হবিগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট সদর উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া এক সময়ের খরস্রোতা খোয়াই নদী, উপজেলাবাসীর সুবিধার্থে এরশাদ সরকারের আমলে এই নদী শহরের তিনশত গজ পূর্বে খনন করে নিয়ে যাওয়া হয়। ফলে নদীর পূর্বের অংশ মরা নদীতে পরিণত হয়। সেখান থেকেই এই নদীটির নাম হয় মরা খোয়াই নদী। বর্তমানে মরা খোয়াই নদীটি এখন দখলদারদের কবলে পরিণত হয়েছে।

    প্রতিনিয়তই চলছে মরা খোয়াই নদী দখলের মহোৎসব। পাওয়া তথ্য মতে, বড়াইল, পশ্চিম পাকুড়িয়া, গুচ্ছগ্রাম সহ চুনারুঘাট সদরের মরা খোয়াই নদীর আশপাশের বাসিন্দা ও উপজেলার বিভিন্ন স্হান থেকে প্রভাবশালীরা এসে মাটি ভরাট করে অবৈধ ভাবে স্হাপনা ও দোকানপাট নির্মাণ করছেন। নাম না প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানান, মরা খোয়াই
    নদীর দুই তীর পৌরশহরের অংশ দখল নিয়ে কিছু লোক অবৈধ স্থাপনা ও দোকান নির্মাণ করেছে। বছরের পর বছর ধরে তারা এসব জমি দখল করে রেখেছে। অনেকেই আবার এসব জমি অবৈধভাবে বেচাকেনা করছে এবং দখল করে দোকানপাট ভাড়া দিচ্ছেন।
    বসন্তকাল আসলেই নদী দখলে মেতে উঠে প্রভাবশালী দখলেরা। এই সময় এলেই মরা নদীতে জলাশয় থাকে না। যে কারণে দখল করতে সুবিধা হয়। যে যার মত মাটি ভরাট করে দখল করছে।  উপজেলা প্রশাসনের কোন উদ্যোগ না নেওয়ায় দখলের কবলে এই মরা খোয়াই নদী। যার ফলে সরকার হারাতে বসেছে সরকারি খাস জমি। গভীর অনুসন্ধানে জানা যায়, নদী ভরাটে সহযোগিতা করছেন রাজনৈতিক নেতারা ও প্রভাবশালী মহল।

    এ ব্যাপারে চুনারুঘাট পৌর মেয়র মোঃ নাজিম উদ্দিন শামসু সাংবাদিকদের জানান,আমরা নদী দখল মুক্ত করতে হবিগঞ্জ ডিসি মহোদয়ের নিকট অনুলিপি প্রেরণ করেছি এবং ইউএনও মহোদয় কে নিয়ে উচ্ছেদের পাশাপাশি অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই আমরা মরা নদী দখল মুক্ত করে ইকোপার্ক এবং পৌর মার্কেট গড়ে তুলবো।