চুনারুঘাট উপজেলায় বিদেশি নিষিদ্ধ ওষুধের ছড়াছড়ি

    0
    233

    আমার সিলেট ডেস্ক,২০ আগস্ট এস. এম. সুলতান খান, চুনারুঘাট প্রতিনিধি : ‘ফুড সাপ্লিমেন্ট’ বা সম্পূরক খাদ্য ঘোষনা দিয়ে বস্তাভর্তি করে অবৈধ ভাবে আমদানি কৃত ভিটামিন ওষুধ আকর্ষণীয় কৌটায় ভর্তি করে চড়া মূল্যে হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের ফার্মেসি গুলোতে বিক্রি হচ্ছে। ওষুধ প্রশাসন পরিদপ্তর থেকে বার বার এ ধরণের ভিটামিন জাতীয় ওষুধ বিক্রয় না করার জন্য কেমিষ্ট এন্ড ডাগিষ্ট সমিতির কেন্দ্রীয় দপ্তরসহ শাখা দপ্তর গুলোতে বার বার পত্র দেওয়া হলেও তা বাস্তবায়িত হচ্ছে না। এ ব্যাপারে চিকিৎসক ও ফার্মেসী মালিকরা পরস্পরকে দায়ী করছেন।

    ফার্মেসির মালিকরা জানান, চিকিৎসকরা এসব ওষুধ লেখায় তারা ফার্মেসিতে রাখতে বাধ্য হচ্ছেন। চিকিৎসকরা জানান, মহল বিশেষের চাপে তারা এসব ওষুধ লিখতে বাধ্য হন। ফার্মেসি গুলো এসব ওষুধ বিক্রি বন্ধ করলে তাদের আর কেউ লেখার জন্য চাপ প্রয়োগ করতে পারবে না। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক জানান, এসব

    বিদেশি কৌটা ভর্তি ওষুধের নাম লিখে আমাদের বদনাম হচ্ছে। এর চেয়ে দেশি কোম্পানীর ওষুধ লিখলে আমরা বেশি লাভবান হই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এসব চিকিৎসকরা দেশের প্রতিষ্ঠিত কোম্পনীর ওষুধ লিখে গাড়ি, বাড়ি ও ফ্লাট উপহার পেলেও কৌটা আমদানিকারকদের কাছ থেকে মাসে ১০হাজার থেকে ১৫হাজার টাকার বেশি কমিশন পান না। বরং ওষুধ না লিখলে বদলির ভয় থাকে।

    এ কারনেই তারা এ ধরনের ওষুধ লিখতে বাধ্য হচ্ছেন। আবার অনেকেই চিকিৎসকদের কাছে না গিয়ে ফার্মেসিগুলো থেকে এসব আমদানিকৃত কৌটা ভর্তি ভিটামিন ওষুধ ক্রয় করতে ভিড় জমাচ্ছে।

    ওষুধ সেবনে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থাকলেও তারা কোন কিছু না জেনেই তা সেবন করছে। ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নিশিত নন্দী মজুমদার জানান, শুনেছি ফার্মেসিগুলোতে আমদানিকৃত এসব ভিটামিন জাতীয় ওষুধ বিক্রি হচ্ছে, অচিরেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে