ছাত্রকে বলৎকারঃকওমি হেফজ মাদরাসার শিক্ষক গ্রেফতার

    0
    208

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,৬ফেব্রুয়ারী,টি আর তালুকদারঃ ফুলবাড়ীতে বলৎকারের অভিযোগে কওমি ও হাফিজিয়া মাদরাসার হাফেজ গ্রেফতার। কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে কওমী মাদরাসার ছাত্রকে একাধীকবার বলৎকার করার অভিযোগে সংশ্লিষ্ঠ মাদরাসার প্রধানকে গতকাল শুক্রবার দুপুরে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এলাকা বাসী ও অভিযোগ সুত্রে জানা যায়,উপজেলা সদরের অদুরে পানিমাছকুঠি গ্রামে কাশিয়াবাড়ী হাফিজিয়া ও কওমি মাদরাসার হাফেজ মুফতি মোহাম্মদ লোকমান হাকিম (৩৮) দীর্ঘদিন থেকে মাদরাসায় শিক্ষকতা করার অন্তরালে ছাত্রদেরকে মানষিক ও শারীরিক ভাবে নির্যাতন করে আসছিলেন।

    গত ২৫ জানুয়ারী/১৫ রাতে ওই মাদরাসার ছাত্র উপজেলার নাওডাঙ্গা বারাইটারী গ্রামের হামিদুল হকের ছেলে গোলাম রহমান রাব্বি (১১) মাদরাসা গৃহে প্রতিদিনের  ন্যায় খাওয়া শেষে সব ছাত্রসহ ঘুমিয়ে পরলে তাকে হাফেজ লোকমান হাকিম নিজ কক্ষে ডেকে এনে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে বলৎকার করে এবং কাউকে না বলার জন্য ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। অবশেষে ছেলেটি মাদরাসার কাউকে না জানিয়ে নিজ বাড়ীতে চলে গেলে বাবা হামিদুল ও মা রেখা বেগম তাকে মাদরাসা যাওয়ার কথা বললে তখন তার বাবা মাকে মাদরাসার হাফেজের অপকৃর্তির কথা জানায়।

    পরে ছেলেটির বাবা হাফেজ লোকমান হাকিম ও মাদরাসার পরিচালনা পরিষদকে বিষয়টি জানালে ঘটনাটি প্রকাশ না করার জন্য জানান। বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে গত ১৩ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার দুপুরে ছেলেটির বাবা হামিদুল থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ তাৎক্ষনিক ভাবে হাফেজ লোকমান হাকিমকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

    ছাত্র রাব্বি জানায়, আমাকে জোরপূর্ব্বক হুজুর ৬ রাত বলৎকার করেন এবং ভয়ভীতি দেখান।বাবা হামিদুল ও মা রেখা জানান, হুজুর আমাদেরকে মোবাইলে ফোনে ভয়ভীতি দেখায় যেন কাউকে বিষয়টি না জানাই। মাদরাসা পরিচালনা পরিষদের সদস্য আবু তাহের ও মানিক মাষ্টার জানান, এ ঘটনায় যদি হুজুর জড়িত থাকে তা হলে অবশ্যই তাকে শাস্তি পেতে হবে।

    এব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ বজলুর রশিদ জানান, অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা নেয়া হবে।