ছাত্রদলের পদপ্রাপ্ত ও বঞ্চিত নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ

    0
    226

    আমারসিলেট24ডটকম,১৯অক্টোবরঃ বিএনপির ছাত্রসংগঠন ছাত্রদলের নবগঠিত কমিটির পদপ্রাপ্ত ও পদবঞ্চিত নেতাকর্মীদের মধ্যে রাজধানী ঢাকার নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। আজ রোববার দুপুরে এ সংঘর্ষের শুরু হয়। এ ঘটনায় ফকিরাপুল থেকে নয়াপল্টনে সবধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ যায়। সংঘর্ষে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদল নেতা ওমর ফারুক কাওসার মারাত্মকভাবে আাহত হয়েছেন। তাকে ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

    প্রত্যক্ষদর্শীরা সূত্রে জানা যায়, সংঘর্ষের সময় ছাত্রদল নেতাকর্মীদের একটি অংশ বিএনপি কার্যালয়ে হামলা চালায়। এসময় দুটি ককটেল বিস্ফোরণও ঘটানো হয়। সেখানে বিপুলসংখ্যক পুলিশ উপস্থিত থাকলেও তারা কোনো পক্ষকেই বাধা দেয়নি বলে কেহ কেহ অভিযোগ করেছেন।

    সংঘর্ষ চলার সময় বিএনপি কার্যালয়ের ভেতরে দলের সিনিয়র নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, হাবিবুন নবী খান সোহেল প্রমুখ।

    আজ রোববার সকাল ৯টার পর ছাত্রদল নেতারা নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ের চতুর্থ তলায় অবস্থিত সংগঠনের কার্যালয়ে অবস্থান নেন। সংগঠনের সভাপতি রাজীব আহসানসহ সংগঠনের শতাধিক নেতাকর্মী বিএনপির কার্যালয়ে আসেন। পরে দুপুর ১২টার পর নয়াপল্টনে আসেন পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। এ সময় নতুন কমিটিকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে এই কমিটি বাতিলের দাবিতে নানা স্লোগান দিতে থাকেন তারা। এক পর্যায় তা সংঘর্ষের রূপ নেয়।এর আগে শনিবার দুপুরে টানা দুই দিন বিক্ষোভের পর সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ফটকে তালা দেন ছাত্রদলের পদবঞ্চিতরা। এসময় তারা নতুন কমিটির কাউকে কার্যালয়ে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারিও দিয়েছিলেন। নতুন কমিটি বাতিলের দাবিতে আন্দোলনের অংশ হিসেবে কার্যালয়ে তালা দেয়া হয় বলে সুত্র থেকে জানা যায়।

    গত মঙ্গলবার রাতে রাজিব আহসান ও আকরামুল হাসানের নেতৃত্বে ২০১ সদস্যের ছাত্রদলের কমিটি দেয়া হয়। এরপর থেকে পদবঞ্চিত নেতারা বিক্ষোভ করে আসছেন। বিক্ষোভের মুখে শনিবার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আসতে পারেন সভাপতিসহ নতুন কমিটির নেতারা। একজন সহ-সভাপতি এলেও তাকে লাঞ্ছিত করা হয়। সুত্রঃনতুন বার্তা।