জনসেবার সর্বোত্তম পন্থা হলো রাজনীতিঃসুজন সমন্বয়কারী

    0
    196
    “জনসেবার সর্বোত্তম পন্থা হলো রাজনীতি-মৌলভীবাজারে সুজন সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার”
     
    সাদিক আহমেদ,স্টাফ রিপোর্টার:“দেশের গণতন্ত্র ও রাজনীতি এখন সংকটাপন্ন।অথচ এই রাজনীতিই হলো জনসেবার সর্বোত্তম পন্থা।কেননা রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে ব্যাপক জনগোষ্ঠীর কল্যানে ইতিবাচক ভূমিকা রাখা যায় সহজেই।দেশের গণতন্ত্র এখন মারাত্মক হুমকীর মুখে।নির্বাচন এখন প্রহসন।নির্বাচনের প্রতি মানুষের আস্থা নেই।এই সংকটময় অবস্থা থেকে গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হবে”।
    রোববার ০৮ সেপ্টেম্বর মৌলভীবাজারে সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন মৌলভীবাজার জেলা কমিটির আয়োজনে বিকাল ৪ টা থেকে রাত সাড়ে ৮ টা পর্যন্ত গোলটেবিল বৈঠকের শুরুতে এসব কথা বলেন সুজনের কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার।
    এসময় জেলার ওয়েস্টার্ন রেস্টুরেন্ট এন্ড পার্টি সেন্টারে সুজন জেলা কমিটির উদ্যোগে “বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কার ও নাগরিক ভাবনা” শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকের মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন দিলীপ কুমার।
    অনুষ্ঠানের শুরুতেই সকলে দাড়িয়ে সম্মিলিত কন্ঠে  জাতীয় সংগীত পাঠ করা হয়।
    সংগঠনটির জেলা কমিটির সহ-সভাপতি এডভোকেট আব্দুল মতিন এর সভাপতিত্বে ও সম্পাদক জহর লাল দত্ত ও সাংবাদিক কাওসার ইকবালের যুগ্ন সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মো: শাহাবুদ্দিন,কুলাউড়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান,”সুজন” শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক কাউসার ইকবাল,”সুজন” শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার অর্থ সম্পাদক, শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও আমার সিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকমের প্রধান সম্পাদক মুহাম্মদ আনিছুল ইসলাম আশরাফী,শ্রীমঙ্গল অনলাইন প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি রুম্মান আহমেদ চৌধুরী শিপুল, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মজিদ, মৌলভীবাজার জেলা পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি সঞ্জীব কুমার দেব,সম্মিলিত সামাজিক উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি খালেদ চৌধুরী,বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি জেলা শাখার সদস্য ও দ্বারিকাপাল মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক জলি পাল প্রমুখ।
    গোলটেবিল বৈঠকের স্বাগত বক্তব্য রাখেন “সুজন” জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জহর লাল দত্ত।
    বৈঠকে সুজনের পক্ষ থেকে ২০ দফা সংস্কার প্রস্তাব তুলে ধরা হয়।সংস্কার প্রস্তাবগুলে হলো:রাজনৈতিক সংস্কৃতিতে পরিবর্তন,নির্বাচনী সংস্কার,কার্যকর জাতীয় সংসদ,স্বাধীন বিচার বিভাগ,নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন,সাংবিধানিক সংস্কার,গণতান্ত্রিক ও স্বচ্ছ রাজনৈতিক দল,স্বাধীন বিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠান,দুর্নীতি বিরোধী সর্বাত্মক অভিযান,যথাযত প্রশাসনিক সংস্কার,বিকেন্দ্রীকরণ ও স্থানীয় সরকার,গণমাধ্যমের স্বাধীনতা,শক্তিশালী নাগরিক সমাজ,মানবাধিকার সংরক্ষন,একটি নতুন সামাজিক চুক্তি,পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা,আর্থিক খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠা,শিক্ষাব্যবস্থা ও শিক্ষার মানোন্নয়ন,তরুণদের জন্য বিনিয়োগ,নারীর ক্ষমতায়ন।