জামায়াতের সঙ্গে আদর্শগত কোনো মিল নেইঃকূটনীতিকদের বিএনপি

    0
    254

    আমারসিলেট24ডটকম,১৩জানুয়ারীঃ বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতেরা বিএনপিকে আন্দোলনের সময় সহিংসতা ও নাশকতা সম্পূর্ণ পরিহার করার জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। আন্দোলন চলাকালে সহিংসতা যেন না হয় সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতেও বিএনপিকে পরামর্শ দিয়েছেন তারা। আজ সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীরর গুলশানের হোটেল হেরিটেজে বিএনপির নেতাদের সঙ্গে বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের একটি বৈঠক হয়। বৈঠক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। বৈঠকে বিএনপির পক্ষ থেকে নির্বাচন ও নির্বাচন পরবর্তী ঘটনাবলী কূটনীতিকদের কাছে তুলে ধরেন। কিন্তু পশ্চিমা কূটনীতিকরা এদেশের বিদ্যমান রাজনৈতিক অচলাবস্থার জন্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি উভয়কেই দায়ি করেন।
    বৈঠক সূত্রে আরও জানা যায়, বৈঠকে বিএনপির পক্ষ থেকে নির্বাচন ও এর পরবর্তী সরকারের শপথ গ্রহণ সংবিধানসম্মত হয়নি এবং সরকার সংবিধান লঙ্ঘন করেছে বলেও কূটনীতিকদের কাছে বিএনপি অভিযোগ করে। বৈঠকে নির্বাচনে অনিয়ম, ১৫৩ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচনের বিষয় তুলে ধরে বিএনপি। কূটনীতিকদের কাছে নির্বাচন চলাকালে বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত খবরও তুলে ধরে বিএনপি। এছাড়া জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির জোট কৌশলগত বলেও কূটনীতিকদের জানানো হয়েছে।
    এছাড়াও বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে জামায়াতের সঙ্গে তাদের জোট স্থায়ী নয়। জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির আদর্শগত কোনো মিল নেই। সময় হলেই সম্পর্কের ব্যাপারে দলের চেয়ারপারসন  সিদ্ধান্ত নেবেন। বৈঠকের পরে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। তিনি বলেন, কূটনীতিকেরা দ্রুত আলোচনার মাধ্যমে সংকট সমাধানের জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। বিএনপির পক্ষ থেকে তাঁদের জানানো হয়েছে যে তারা আলোচনার মাধ্যমে সংকটের  সমাধান করতে চায়।
    এদিকে বৈঠক শেষে ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজীনা সাংবাদিকদের বলেন, সহিংসতা ও নৈরাজ্য দূর করতে হলে সরকারকে যেমন আলোচনার পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে, তেমনি হরতাল ও অবরোধ প্রত্যাহার করে বিএনপিকেও আলোচনার পরিবেশ তৈরি করতে হবে। এদেশের সকল রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন বাংলাদেশের জনগণ দেখতে চায়। এর জন্য আওয়ামী ও বিএনপি উভয় দলকেই আলোচনার মাধ্যমে নিরপেক্ষ নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করতে হবে।
    অন্যদিকে বৈঠকে অংশগ্রহণকারী কানাডার রাষ্ট্রদূত হিজার ক্রুডেন বলেন, বাংলাদেশের জনগণ চাইলে এখনো সব দলের অংশগ্রহণে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব। কিন্তু বিএনপিকে হরতাল, অবরোধ ও সহিংসতার পথ পরিহার করে আলোচনায় আসতে হবে। তেমনি সরকারি দল আওয়ামী লীগকেও আলোচনার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে।
    বিদেশী কূটনীতিকদের সাথে বৈঠকে বিএনপির পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবিহউদ্দিন আহমেদ, রিয়াজ রহমান, অধ্যাপক ড. বোরহানউদ্দিন খান, শফিক রেহমান প্রমুখ। আর বিদেশী কূটনীতিকদের মধ্যে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজীনা, কানাডিয়ান রাষ্ট্রদূত হিদার ক্রুডেন, ইইউ প্রতিনিধি উইলিয়াম হানাসহ কানাডা, জার্মান, ব্রাজিল, ইতালি, দক্ষিণ কোরিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ও নেদারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনারগণ।