জৈন্তাপুরে ১৯বিজিবি’র অভিযানে ৬৫বস্তা সুপারী আটক

    0
    281

    রেজওয়ান করিম সাব্বির,জৈন্তাপুর সিলেট প্রতিনিধিঃ ১৯ বিজবি’র জৈন্তাপুর ক্যাম্পের অভিযানে ৬৫বস্তা সুপারী সহ ১টি নৌকা আটক।
    ১১ আগষ্ট রবিবার সকাল ১১টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে জৈন্তাপুর উপজেলা সদরের ছোট নয়াগাং নদীতে অভিযান পরিচালনা করে ১৯বিজিবি জৈন্তাপুর ক্যাম্প কর্তৃক ৬৫বস্তা ভারতীয় সুপারী সহ ১টি নৌকা আটক করতে সক্ষম হয়।

    এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,প্রতিনিয়ত জৈন্তাপুর উপজেলা বিভিন্ন সীমান্ত পথ দিয়ে ভারত হতে চোরাকারবারীরা বিভিন্ন প্রকার কাঁচামাল, সুপারী, মদ, ইয়াবা, মোটর সাইকেল, ভারতীয় নি¤œমানের চা-পাতা, বিভিন্ন প্রজাতীর সিগারেট, নাছির বিড়ি ও গরু মহিষ বাংলাদেশে নিয়ে আসে। এসকল ভারতীয় পন্য সামগ্রী নিরাপদে নিয়ে আসার রোড হিসাবে বর্ষাকালে উপজেলার ছোট নয়াগাং, বড় নয়াগাং ও সারী নদী দিয়ে নৌকা যোগে বাংলাদেশে প্রবেশ করে।

    তারা জানায় সুপারী, বিডি ও সিগারেটের বস্তায় মধ্যে সুকৌশলে ভারতীয় মদ, ইয়াবা পাচার করছে। চোরাকারবারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলেতে সাহস পায় না। যার ফলে প্রতিনিয়ত এসকল মাদক দ্রব্য বাংলাদেশে প্রবেশ করছে।
    তারা আরও জানায় উপজেলার হরিপুরের চোরাকারবারী দলের অন্যতম সদস্য আব্দুর রফিক উরফে লোদাই হাজীর ৪টি নৌকা দিয়ে ২৭৫বস্তা ভারতীয় সুপারীর চালান বাংলাদেশে প্রবেশ করে। জৈন্তাপুর ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা জানতে পেরে নয়াগাং নদীতে অভিযানে নামে।

    এসময় তারা ৬৫বস্তা সুপারী সহ ১টি নৌকা আটক করে জৈন্তাপুর ক্যাম্পে নিয়ে যায়। এদিকে বিজিবির উপস্থিতি বুঝেতে পেরে চোরাকারবারী চক্রের সদস্যরা ৩টি সুপারী বুঝাই নৌকা সুকৌশলে নদীর পানিতে ডুবিয়ে রেখে পালিয়ে যায়।
    এবিষয়ে জানতে ১৯বিজিবির জৈন্তাপুর ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার সিগন্যাল তোফাজ্জল হোসেন প্রতিবেদককে আটকের কথা নিশ্চিত করে বলেন- গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে ছোট নয়াগাং নদীতে অভিযান পরিচালনা করে ৬৫বস্তা সুপারী সহ নৌকা আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে আসি।

    তিনি আরও বলেন আমি এই ক্যাম্পে নতুন যোগদান করেছি। চোরাচালান বন্ধে আপনারা আমাকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করুন চোরাকারবারী যত শক্তিশালী হউক না কেন, আমরা সীমান্তের চোরাকারবার বন্ধ করতে সর্বদা প্রস্তুত।