তরুণদের অনুপ্রাণিত করতে গ্রামীণফোনের “চলো বাংলাদেশ-২০২৩”

0
187

আমরা সিলেট ডেস্ক: অনুপ্রেরণা ও একতাবদ্ধ হওয়ার চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আজ (০২ অক্টোবর) রাজধানীর এক হোটেলে “চলো বাংলাদেশ ২০২৩” ক্যাম্পেইন শুরু করল গ্রামীণফোন। আড়ম্বরপূর্ণ এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণফোনের চিফ বিজনেস অফিসার আসিফ নাইমুর রশিদ ও প্রতিষ্ঠানটির হেড অব মার্কেটিং ফারহা নাজ জামান সহ বিভিন্ন সম্মানিত ব্যক্তিবর্গ। দেশের মানুষ, বিশেষ করে তরুণদের অদম্য চেতনায় এগিয়ে যাওয়ার অনন্য যাত্রার উদযাপনেই এ ক্যাম্পেইন নিয়ে এসেছে গ্রামীণফোন।

একটি শব্দের চেয়েও বেশি, “চলো বাংলাদেশ” দীর্ঘকাল ধরে লক্ষ লক্ষ বাংলাদেশীর জন্য আশার আলো এবং প্রকৃত অনুপ্রেরণার উৎস। অর্থবহ আইকনিক এ গানটি যেন আমাদের জাতীয় চেতনাকেই তুলে ধরে। কিছু দিন পরই শুরু হতে যাচ্ছে আইসিসি মেন’স ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপ ২০২৩।
এ উপলক্ষে ‘চলো বাংলাদেশ’এর শক্তিকে কাজে লাগিয়ে দেশের তরুণদের আরো ভালো কিছু করতে অনুপ্রাণিত করতে র‍্যাবিটহোল, ওয়ালটন, এপেক্স, মাস্টারকার্ড, সুজুকি মোটরস, পাঠাও, র‍্যাংগস, শাওমি, শেয়ারট্রিপ, খাজানা মিঠাই, আর্টিসান, ডিসকভারি ট্যুরস অ্যান্ড লজিস্টিকস, তাবাক কফি, সিম্ফনি, সেলেক্সট্রা লিমিটেড-সহ অন্যান্য ব্র্যান্ডের সাথে অংশীদারিত্ব করেছে গ্রামীণফোন।

পাশাপাশি, “চলো বাংলাদেশ ২০২৩” ক্যাম্পেইনে ভক্তদের জন্য থাকছে বিভিন্ন আকর্ষণীয় কার্যক্রম, যার মধ্যে রয়েছে জনপ্রিয় স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম র‍্যাবিটহোলে বিশ্বকাপের ম্যাচগুলোর লাইভ দেখার সুযোগ। এ ক্যাম্পেইনের অন্যতম আকর্ষণ ‘চলো বাংলাদেশ প্যাক।’ মাইজিপি অ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকরা দুর্দান্ত এই ইন্টারনেট প্যাকটি উপভোগ করতে পারবেন। এর ফলে, ক্রিকেট বিশ্বকাপের উন্মাদনা উপভোগে করতে পারবেন দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাসকারীরাও। তরুণদের লাইফস্টাইলকে সমৃদ্ধ করতে থাকবে চলো বাংলাদেশ থিমের জুতা, উইন্ডব্রেকার, টি-শার্ট, সুইট বক্স, কফি কাপ প্রভৃতি, যা পাওয়া যাবে গ্রামীণফোনের পার্টনার আউটলেটগুলোতে। আইসিসি মেন’স ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপ ২০২৩ এর সাথে মিলিয়ে গ্রামীণফোন ‘চলো বাংলাদেশ’ গানের থিম তৈরি করেছে, যা বিশ্বকাপকে করে তুলবে আরও উত্তেজনাপূর্ণ, ফিরিয়ে আনবে ক্রিকেটপ্রেমীদের রোমাঞ্চকর স্মৃতিকে।

এ নিয়ে গ্রামীণফোনের চিফ বিজনেস অফিসার আসিফ নাইমুর রশিদ বলেন, “গ্রামীণফোন গ্রাহক-কেন্দ্রিক ব্র্যান্ড। আর এ হিসেবে আমরা গ্রাহকদের সেবাদানে অঙ্গীকারবদ্ধ–হোক সেটা শক্তিশালী নেটওয়ার্ক ও দ্রুতগতির ইন্টারনেট নিশ্চিত করা কিংবা এর চেয়েও বেশি কিছু। গ্রামীণফোনে আমাদের লক্ষ্য সবাইকে অনুপ্রাণিত করা। এজন্য, আমাদের “চলো বাংলাদেশ ২০২৩” ক্যাম্পেইন-এর মাধ্যমে, আমরা সবাইকে, বিশেষ করে আমাদের সম্ভাবনাময় তরুনদেরকে একটি নতুন যাত্রা শুরু করার জন্য আহ্ববান জানাই, যেখানে আকাঙ্ক্ষা উদ্ভাবনের সাথে মিলিত হয়, যেখানে ঐক্য শক্তি হয়ে ওঠে এবং যেখানে বাংলাদেশের অদম্য চেতনা প্রগতির আলো জ্বালায়। আর এ যাত্রা শুরুর এখনই সময়। আমাদের এ যাত্রায় আমি আমাদের সকল অংশীদারদের প্রতি কৃতজ্ঞ। আসুন আমরা একসাথে আমাদের প্রিয় দেশের জন্য প্রত্যাশা ও সীমাহীন সম্ভাবনার নতুন আখ্যান রচনা করি এবং আরও ঐক্যবদ্ধ ভবিষ্যতের পথকে আলোকিত করি”।

অনুষ্ঠানটিতে যারা “চলো বাংলাদেশ ২০২৩” প্রকল্পে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে, তাদের প্রতি গ্রামীণফোনের পক্ষ প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও সন্মান প্রদর্শন করা হয়। এছাড়াও, বিভিন্ন কার্যক্রম ও ব্র্যান্ড অংশীদারিত্ব সম্পর্কে জানার ক্ষেত্রে ক্যাম্পেইনটি একটি প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করবে। গ্রামীণফোন চলোবাংলাদেশ -এ যুক্ত হওয়ার মাধ্যমে সবাইকে এ ক্যাম্পেইনে সম্পৃক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। কেননা, গ্রামীণফোন বিশ্বাস করে এর মাধ্যমেই একসাথে আরও একতাবদ্ধ ও উজ্জ্বল সম্ভাবনাময় ভবিষ্যতের বাংলাদেশ গড়ে তোলা সম্ভব হবে।