তাবলীগ জামাতের কর্মীরা ২০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন

    0
    245

    “তাবলীগে কোনো জঙ্গি গোষ্ঠী আছে কি না সাংবাদিকদের এই প্রশ্নে তিনি বলেন, এটা বলা মুশকিলতবে আমরা সন্দেহ করছি, অভিযুক্তরা এরকম গোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেকেননা তারা রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়ে জঙ্গিগোষ্ঠী হিসেবে ফায়দা লুটছে”

    আমারসিলেট24ডটকম,২০জানুয়ারীঃবিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে আসা দেশি-বিদেশি মুসল্লিদের জন্য এবং কাকরাইল মসজিদ নির্মাণের নামে চাঁদা তুলে আত্মসাৎ করার অভিযোগ করেছেন কয়েকজন তাবলীগ জামাতকর্মী।রোববার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির ছোট মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে কর্মীরা এই অভিযোগ করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তাবলীগকর্মী মোঃ মামুনুর রশিদ।

    লিখিত বক্তব্যে সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, ধানমণ্ডি এলাকার ওয়াসিফুল ইসলামের নেতৃত্বে একটি দল দেশ-বিদেশ থেকে আসা তাবলীগ এবং কাকরাইল মসজিদ নির্মাণের নামে চাঁদা তুলে প্রায় ২০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এই টাকা আত্মসাৎ করতে তাকে সাহায্য করেছেন তারই স্ত্রী মিনু ইসলাম, ছেলে ওসামা ইসলাম এবং ড. ইফতেজা হাসান নামের একজন।মামুনুর রশিদ বলেন,  আমরা এই বিষয়ে প্রতিবাদ করলে আমাদের শারীরিক নির্যাতন করে জঙ্গি অপবাদ দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

    তাবলীগে কোনো জঙ্গি গোষ্ঠী আছে কি না সাংবাদিকদের এই প্রশ্নে তিনি বলেন, এটা বলা মুশকিল। তবে আমরা সন্দেহ করছি, অভিযুক্তরা এরকম গোষ্ঠীর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। কেননা তারা রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়ে জঙ্গিগোষ্ঠী হিসেবে ফায়দা লুটছে। তাই আমরা চাই, তারা তাবলীগ জামাত থেকে দূরে থাকুক। এখানে আমরা রাজনীতি এবং দুর্নীতিসহ সবকিছুর ঊর্ধ্বে থাকতে চাই।’তিনি আরো অভিযোগ করেন, কাকরাইল মসজিদের ভেতরে ওয়াসিফ-ওসামা গ্রুপ ও জুবায়ের-হামজালা গ্রুপ তাদের ওপর শারীরিক নির্যাতন চালিয়েছে। এ ঘটনার নেতৃত্বে ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজ হান্নান ও আনিসুর রহমান। তিনি এ ব্যাপারে সরকারসহ সব মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- মেহেদি হাসান, শরিফুল ইসলাম, আবু নাইম জাকারিয়া, আতিকুল ইসলাম, ড. আব্দুস সালাম প্রমুখ।খবরঢাকানিউজ

    উল্লেখ্য, ভারতের মেওয়াটি এলাকার  মৌলভী ইলিয়াসের (মৃত) স্বপ্নে প্রাপ্ত ছয় উছুলের এই তাবলীগ জামাত প্রতি বছর টঙ্গি সহ দেশে বিদেশে ইজতেমা,গাস্ত,বিভিন্ন ইসলামী শব্দ ব্যাবহার করে নতুন এক তাবলীগী সমাজ গড়ে তুলার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।