দুইযুগ পর রাস্ট্রপতির এলাকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমনঃআনন্দিত হাওরবাসী

0
380

নিজস্ব প্রতিনিধি,আমার সিলেট রিপোর্টঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আগামী ২৮ ই ফ্রেব্রুয়ারি কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইনে প্রায় ২৬ বছর পরে পদার্পণ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।এতে হাওরাঞ্চলের মানুষের মধ্যে অসাধারণ প্রাণচাঞ্চল্য ও আনন্দ বিরাজ করছে।

এ সময় মিঠামইনে সেনানিবাসের ভিওিপ্রস্তর স্হাপন করার কথা রয়েছে।
সেনানিবাসের উদ্বোধন শেষে মিঠামইন কলেজ সংলগ্ন হেলীপ্যাড মাঠে জনসভা করবেন বলে রাষ্ট্রপতি পুত্র স্হানীয় সাংসদ রেজওয়ান আহমদ তৌফিক এর সুত্রে জানা গেছে।
ইতিমধ্যে মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ হাওরের তিন উপজেলায় সফর করে গেছেন। তিনি আগামী ২৮ ফ্রেব্রুয়ারী প্রধানমন্ত্রী জননেএী শেখ হাসিনা মিঠামইনে সেনানিবাস উদ্বোধনসহ জনসভা করবেন বলে মত দিয়েছেন।
এ উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি তিন উপজেলায় বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষদের সাথে চলতি মাসের ১৫ থেকে ১৭ ই ফ্রেব্রুয়ারি পর্যন্ত পৃথক পৃথক মতবিনিময় সভা করেছেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়,গত ১৯শে ফ্রেব্রুয়ারি’২৩ দুপুরে স্থানীয় সাংসদ সদস্যের নেতৃত্বে দলীয় নেতা কর্মীও পুলিশ প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ প্রধানমন্ত্রীর জনসভা স্হল পরিদর্শন করেন।
এরইমধ্যে সভাস্থলেরপরিপূর্ণ প্রস্তুতির কাজ চলছে।

অন্যদিকে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক রাষ্ট্রপতি পরিবারের সদস্য এ্যাডভোকেট শরীফ স্থানীয় সকল নেতাকর্মীদের প্রতি সকল ইউনিয়নে কাজ করার নির্দেশ দেন।

২৫ বছর পূর্বে ১৯৯৮ সনে সেপ্টেম্বর মাসে আওয়ামিলীগ সরকার প্রথম ক্ষমতায় আসার পর তৎকালীন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার ও এমপি এ্যাডভোকেট আবদুল হামিদের আমন্ত্রণে তিনি মিঠামইনে সফর করেন।বর্তমান মিঠামইন আর ১৯৯৮ সনের মিঠামইন এক নয় এর মাঝখানে যথেষ্ট উন্নয়ন হয়েছে বর্তমান সরকারের আমলে এই তিন উপজেলায়।

তৎকালীন সময়ের হেলিকপ্টার নামানোর কোনো ব্যবস্থা ছিল না।হাসপাতালের মাঠে বিকল্প হেলীপ্যাড তৈরী করে প্রধান মন্ত্রীর বহন কারী হেলিকপ্টার অবতরণ করে ছিলেন।তিনি তখনকার সময়ে রিক্সা যোগে পুরাতন কাঠবাজারের মাঠে জনসভার মঞ্চে এসে ছিলেন।

তিনি প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে হাওরের প্রতিটি উপজেলায় প্রস্তুতি সভা করে চলেছেন। প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে কিভাবে ব্যাপক উপস্থিতি করা যায় সে লক্ষ্যে তিন উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নেই ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের সহযোগিতায় নেএকর্মীরা প্রস্তুতি সভা করে যাচ্ছেন। প্রস্তুতি সভা শেষে উপজেলা সদর সহ বিভিন্ন ইউনিয়নে হাটবাজারে মিছিল ও পথসভা করে যাচ্ছেন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। মিঠামইনে প্রধানমন্ত্রীর সফরকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন ইউনিয়নে উৎসবের আমেজ সৃষ্টি হয়েছে। প্রার্শ্ববওী জেলা থেকে আত্নীয় স্বজনরা ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রীকে দেখার জন্য মিঠামইনে আসতে শুরু করেছে।

স্হানীয় সংসদ সদস্য কিশোরগঞ্জ-৪ রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক এ প্রতিনিধিকে জানান,তিন উপজেলায় এই প্রধানমন্ত্রীর সভাকে কেন্দ্র করে বর্ধিত সভা নিয়মিত করে যাচ্ছেন। যত প্রকার প্রচার প্রচারণ করতে হয় তা আমরা নেতাকর্মীদের দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছি। তিনি আশা করছেন সমাবেশে ২ লক্ষ্যাধিক লোকের অধিক উপস্থিতি থাকবে হাওরবাসী প্রধানমন্ত্রীকে একনজর দেখে শুভেচ্ছা জানানোর অপেক্ষায় রয়েছে। আগাম ২৮ তারিখ সমাবেশকে সফল করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।