দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় টেস্টে অলআউট বাংলাদেশ

    0
    212

    আমার সিলেট  24 ডটকম,২২অক্টোবর নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনেই অলআউট হয়ে গেছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় দিনে মাত্র ৫৪ রান যোগ করতেই তারা হারিয়েছে বাকি পাঁচ উইকেট। নিউজিল্যান্ডের পক্ষে ৫ উইকেট পেয়েছেন ওয়াগনার। এছাড়াও সোধী ৩টি এবং বোল্ট ও এন্ডারসন পেয়েছেন ১টি করে উইকেট। বাংলাদেশের পক্ষে একমাত্র অর্ধশত রান পেয়েছেন তামিম ইকবাল।
    গতকাল চা-বিরতির সঙ্গে সঙ্গে নামা বৃষ্টিতে দিনের শেষ সেশনে অবশ্য আর খেলাই হয়নি। হঠাৎ এই বৃষ্টির আঘাতে খেলা বন্ধ হয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত তামিমের ৯৫ রানে ভর করে বাংলাদেশ ৫ উইকেটে ২২৮ রান তুলে দিনের খেলা শেষ করে। অপরাজিত থাকেন মুশফিকুর রহিম। গতকাল টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই অবশ্য বিপদে পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। একদিকে এনামুল হক বিজয় তার ফর্মহীনতা ধরে রেখে ব্যক্তিগত ৭ রানে ফিরে এলেন। আরেক দিকে তামিম ইকবাল পরপর দু’বার ক্যাচ তুলে দিয়েও বেঁচে যান। তবে এ প্রথম ধাক্কাটা কেটে যাওয়ার পর মার্শাল আইয়ুব ও তামিম ইকবাল দারুণভাবে স্থিতিশীল করে দিলেন বাংলাদেশের ইনিংসকে। বিস্ময়করভাবে দু’জনের জুটিতে চট্টগ্রাম টেস্টে দারুণ ধৈর্য দেখানো মার্শালই বেশি আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেন। শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয় উইকেটে এই দু’জন ৬৭ রান যোগ করার পর ৬২ বলে ৬টি চারে সাজানো ৪১ রান করে ফিরে যান মার্শাল।
    বাংলাদেশের ইনিংসে তেমন কোনো প্রভাব পড়েনি। তামিম ইকবালের সঙ্গে এ সময় এসে যোগ দেন চট্টগ্রামে ১৮১ রানের মহাকাব্য লেখা মোমিনুল হক। তিনিও গতকাল দারুণ আক্রমণাত্মক খেললেন। চতুর্থ উইকেটে মোমিনুল আর তামিম যোগ করেন ৭৬ রান; এর মধ্যে ৪৭ রানই মোমিনুলের। মাত্র ৫৮ বলে ৮টি চারে সাজানো এ ইনিংস খেলে মোমিনুল ফিরে যাওয়ায় এ জুটি ভাঙল। ততক্ষণে তামিম ইকবাল তার পঞ্চম সেঞ্চুরির স্বপ্ন দেখাতে শুরু করেছেন।
    সাকিব আল হাসানের সঙ্গে জুটি গড়ার পথে নিজের গুটিয়ে যাওয়া অবস্থাটা ছেড়ে বেরিয়ে আসেন তামিম। একটার পর একটা বাউন্ডারিতে পৌঁছে যান ৯৫ রানে। এ অবস্থায়ই ইনিংসে তৃতীয়বারের মতো ক্যাচ তুলে দেন এ বাঁহাতি ওপেনার। এবার কঠিন ক্যাচটা ধরে তামিমকে ফিরিয়ে দেন কেন উইলিয়ামসন। ফলে ১৫৩ বলে ১৭টি চারে সাজানো তামিমের ইনিংসের সমাপ্তি হয়।
    চা-বিরতির ঠিক আগে-আগে তামিমকে এভাবে হারানোটাই আসলে দিনটাকে বাংলাদেশের হতে দেয়নি। তামিম আউট হওয়ার দলীয় ২০ রান পর আউট হয়ে ফেরেন সাকিব আল হাসানও। সাকিব আউট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে চা-বিরতি ঘোষণা করা হয়। এরপর নামে বৃষ্টি। এই পরপর কয়েকটি ঘটনায় দিনের মাঝের হাসিমুখটা আর ধরে রাখতে পারেনি বাংলাদেশ।