নড়াইলে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানউজ্জ্বলসহ গ্রেফতার-২

0
23
নড়াইলে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানউজ্জ্বলসহ গ্রেফতার-২

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলে উপজেলা নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় সদরের সিংগাশোলপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বহিস্কৃত স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা উজ্জ্বল শেখ (৩৭) তার সহযোগী আঃ রাজ্জাককে (৩৯) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৪ জুন) দুপুরে সদরের কাড়ারবিল এলাকা থেকে উজ্জ্বলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সে গোবরা গ্রামের আব্দুস সাত্তারের ছেলে। এ ছাড়া একই দিন ওই গ্রামের রসুল মোল্যার ছেলে রাজ্জাককে নিজ এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। এর আগে ২০২২ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর একটি চাঁদাবাজির মামলায় কিছুদিন উজ্জ্বল শেখ হাজত খাটে।
ভুক্তভোগীরা জানান, রবিবার (২ জুন) রাত ১২টার দিকে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান উজ্জ্বলের নেতৃত্বে ৩০-৪০ জনের একটি দল সিংগাশোলপুর ইউনিয়নের গোবরা গ্রামে নিউটন গাজীর (৩৮) প্রাইভেটকার পুড়িয়ে দেয়। গাড়ির পোড়ানোর পাশাপাশি নিউটনের ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুরসহ প্রায় এক ভরি স্বর্ণালংকার এবং প্রায় এক লাখ টাকা লুটপাটের অভিযোগ ওঠে। এ সময় নিউটনের বৃদ্ধ বাবা আবুল হোসেন গাজী (৭০), স্ত্রী নাসরিন আক্তার (৩৫), শিশুপুত্র সাব্বির গাজী (১০) ও ছয়মাস বয়সী আরাব এবং প্রতিবেশি মোহাম্মদ লিটনকে (৪২) মারপিট করে আহত করা হয়। এ ঘটনায় নিউটন গাজী বাদি হয়ে নড়াইল সদর থানায় সোমবার (৩ জুন) রাতে সাবেক চেয়ারম্যান উজ্জ্বল শেখকে প্রধান আসামি করে ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন ।
ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, ২১ মে অনুষ্ঠিত নড়াইল সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নিউটন আনারস প্রতীকের বিজয়ী প্রার্থী আ’লীগ নেতা আজিজুর রহমান ভূঁইয়ার পক্ষে কাজ করায় প্রাইভেটকার অগ্নিসংযোগ, বাড়িঘরে হামলা,লুটপাট ও মারধরের ঘটনা ঘটেছে। সাবেক চেয়ারম্যান উজ্জ্বল শেখ পরাজিত প্রার্থী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি তোফায়েল মাহমুদের পক্ষে কাজ করেন।
এদিকে, উজ্জ্বল শেখের বিরুদ্ধে এলাকায় লাখ লাখ টাকা চাঁদাবাজি, গোবরা বাজারে দোকানপাট লুটপাট,ভাংচুর, এলাকার নিরীহ মানুষের ও সরকারি জমি জোরপূর্বক দখল, সরকারি গাছকাটা, সাধারণ মানুষকে অত্যাচার ও নির্যাতন, ২০২১ সালে সিঙ্গাশোলপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা আশিকুর রহমান ও তার আতœীয় ১০টি পরিবারকে একঘোরে করে রাখাসহ নানা অপকর্মের অভিযোগ রয়েছে। এসব ঘটনায় তার বিরুদ্ধে নড়াইল সদর থানায় ৭টি সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজির মামলা ও একাধিক জিডি রয়েছে রয়েছে। অনেকে তার ভয়ে মামলা করলেও পরে তা প্রত্যাহার করে নেয়। অভিযোগ রয়েছে সরকারি দলের ছত্রছায়ায় থেকে একের পর এক সে এসব অপকর্ম করে যাচ্ছে। ফলে এলাকার মানুষ তার ভয়ে কেউ কথা বলতে চায় না। তার বিরুদ্ধে কেউ কথা বললেই নেমে আসে খড়গ।
সিঙ্গাশোলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অমিত সাহা পিযুষ বলেন, এলাকায় কয়েক বছর ধরে নানা অপকর্ম ঘটলেও কোনো প্রতিকার নেই। এমনকি মুখ খোলার মতোও অবস্থা নেই। এলাকার মানুষ সব সময় অনেকটা আতংকে থাকে।
সিঙ্গাশোলপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম হিটুকে এ বিষয়ে জানার জন্য কয়েকবার ফোন করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
নড়াইল সদর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, সাবেক চেয়ারম্যান উজ্জ্বল শেখসহ দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। উজ্জ্বলের বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত মোট ৭টি চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী মামলা রয়েছে। এ মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।