নবীগঞ্জে জমে ওঠেছে পশুর হাট,স্বাস্থ্য বিধি মানতে অনীহা

0
581
নবীগঞ্জে জমে ওঠেছে পশুর হাট,স্বাস্থ্য বিধি মানতে অনীহা
নবীগঞ্জে জমে ওঠেছে পশুর হাট,স্বাস্থ্য বিধি মানতে অনীহা

নূরুজ্জামান ফারুকী, বিশেষ প্রতিনিধিঃ কঠোর লকডাউনের মাঝেও জমে উঠেছে নবীগঞ্জ ছালামতপুর পৌর পশুর হাট। সেখানে মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্য বিধি। ক্রেতা-বিক্রেতারা মাস্ক বিহীন অবস্থায় অবাধে পশু কেনাবেচা করছেন। এতে করোনা সংক্রামনের ঝুকিঁ বাড়ছে । এতে বাজারের পার্শ্ববর্তী গ্রামের মানুষ রয়েছে আতংকে।

যদিও ইজারাদার শহরে মাইকিং করে স্বাস্থ্য বিধি মেনে পশুর হাট বসার ঘোষনা দেয়। বাস্তবে তা মানা হচ্ছে না। দেখা যায় স্বাস্থ্য বিধির প্রতি অনীহা।

মঙ্গলবার ( ৬ই জুলাই ২০২১) সকাল থেকেই নবীগঞ্জ শহরতলীর ছালামতপুর এলাকায় বসে পৌর পশুর হাট। সকাল থেকেই হাজার হাজার মানুষের উপচে পড়া ভীড় জমে ওই বাজারে। প্রায় ১৫টি চা ষ্টল খোলা হয়েছে ওই বাজারে।

এ ক্ষেত্রে কঠোর অবস্থানে প্রশাসন। কঠোর এই লকডাউনের মাঝে নবীগঞ্জ পৌর পশুর হাটে গরুর বাজার বসানোকে কেন্দ্র করে সাধারণ মানুষসহ পাশ্ববর্তী ছালামতপুর গ্রামবাসীর মাঝে করোনা সংক্রামনের ঝুকিঁ’র আতংকে রয়েছেন। কয়েক হাজার ক্রেতা-বিক্রেতার উপস্থিতি ঘটে উক্ত বাজারে। এদের কারো মুখে মাস্ক নেই। মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্য বিধি। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নেই কোন ভুমিকা। পৌর মেয়র কিছু মাস্ক বিতরণ করলেও তিনি চলে আসার সাথে সাথে মাস্ক বিহীন হয়ে পড়ে পুরো বাজার।

বিশেষজ্ঞরা জানান, যেখানে স্বাস্থ্য বিধি না মেনে লোক সমাগম বেশী, সেখানেই করোনা সংক্রামন ঝুকিঁ থাকে শতভাগ।

এছাড়া প্রতিদিনই নবীগঞ্জে ৪/৫ জন করোনা পজেটিভ রোগী সনাক্ত হচ্ছে। মঙ্গলবার ১৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করলে ৬ জনের করোনা পজেটিভ আসে। ইতিমধ্যে গত এক সপ্তাহে ২৯ জন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে ৭ জন হাসপাতালে ও বাকীরা বাড়িতে আইনোলেশনে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারন করায় সরকার প্রথমে সারাদেশে ৭ দিনের লকডাউন ঘোষনা করে। পরে সময় বর্ধিত করে ১৪ জুলাই পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে। সারাদেশের ন্যায় লকডাউন বাস্তবায়নে উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি সেনাবাহিনী, পুলিশ বাহিনীর সদস্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। স্বাস্থ্য বিধি অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে নেয়া হচ্ছে শাস্তি মুলক ব্যবস্থা ও আর্থিক জরিমানা। প্রতিদিনই উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।