নবীগঞ্জে বয়লার মিলের কালো ধুঁয়া পরিবেশের হুমকি

    0
    255

    আমারসিলেট টুয়েন্টিফোর ডটকম,ফেব্রুয়ারীনবীগঞ্জ শহরের প্রাণ কেন্দ্র ওসমানী রোডস্থ টেকাদিঘীর বয়লার মিলের কালো ধুয়ায় আশপাশ এলাকার বাসা-বাড়িসহ বিভিন্ন শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্টান হুমকীর সম্পুখিন হয়ে পড়েছে। পাশাপাশি এই ধুয়ার কারনে পরিবেশ দুষিত হওয়ায় জনস্বাস্থ্যও হুমকির মুখে রয়েছে। দেখা দিয়েছে নানা রোগ ব্যধি। এ ব্যাপারে প্রায় ১ মাস পুর্বে ক্ষতিগ্রস্থি নাগরিক সমাজের পক্ষে পৌরসভার মেয়র বরাবরে আবেদন করার পরও কোন প্রতিকার না হওয়ায় ক্ষুব্ধ আবেদন কারীরা।

    আবেদন সুত্রে জানাযায়, দীর্ঘদিন ধরে নবীগঞ্জ শহরের ওসমানী রোডস্থ টেকাদিঘীর স্বত্ত্বাধিকারী আব্দুর রব ওই স্থানে আবাসিক এলাকা বেষ্টিত এলাকায় একটি অটো রাইস মিল এন্ড বয়লার মিল গড়ে তোলেন। এতে মারাত্বক ভাবে প্রাকৃতিক পরিবেশ দুষিত হচ্ছে। ফলে প্রতিদিনের কালো ধুয়ায় পাশ্ববর্তী বাসা-বাড়ি, মসজিদ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্টান এবং পথচারীদের জনস্বাস্থ্য হুমকির সম্পুখিত হয়ে পড়েছে। এর বিষক্রিয়ায় বিভিন্ন জাতের বনজ ও ফলজ বৃক্ষের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হচ্ছে।

    এছাড়া উক্ত বয়লার মিলের কালো ধুঁয়া ও ছাই দ্বারা নিকটবর্তী ইব্রাহিম মসজিদের মিনার কলো ছাইয়ে নষ্ট হচ্ছে। প্রতি সপ্তাহে মসজিদ কর্তৃপক্ষ মিনারে রং লাগিয়ে এর পরিচর্য্যা করছেন। অযু ও গোসলের জন্য ব্যবহৃত পুকুরের পানি ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

    হুমকীর মুখে পড়েছে শিক্ষার পরিবেশ। প্রাকৃতিক পরিবেশ দুষনের ফলে আশপাশের বাসা-বাড়ির শিশু-কিশোরসহ মানুষের শরীরে নানা রোগের সৃষ্টি হচ্ছে বলেও অভিযোগে প্রকাশ। এ ব্যাপারে মসজিদ কমিটি ও বিভিন্ন আবাসিক এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ বাসিন্দাদের পক্ষে পৌর মেয়র বরাবরে আবেদন করেছেন আব্দুর রহমান বুরহানী, মোঃ আব্দাল মিয়া, শাহ জাহান সিরাজী, আলহাজ্ব মোহাম্মদ আলী শিকদারসহ অনেক। যার অনুলিপি উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে দেয়া হয়েছে।

    দীর্ঘ এক মাসের মধ্যেও এর কোন প্রতিকার না পেয়ে আবেদন কারীরা ক্ষোভ ও হতাশা প্রকাশ করেছেন। তাদের দাবী শহরের আবাসিক এলাকার বাসিন্দা, শিক্ষা প্রতিষ্টান ও মসজিদের মুসল্লিদের র্দুদশার কথা বিবেচনা করে পরিবেশ রক্ষা করতে উক্ত বয়লার মিল বন্ধ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি জোরদাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।