নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না জামায়াতে ইসলামী

    0
    249

    আমার সিলেট  24 ডটকম,০৭নভেম্বরঃ আসন্ন ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। উচ্চ আদালত এই  রাজনৈতিক দলটির নিবন্ধন বাতিল করে। নির্বাচন কমিশনে আদালতের রায়ের কপি পৌঁছার পর তা পর্যালোচনা করে নির্বাচন কমিশন সচিবালয় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ সাংবাকিদের একথা জানান।
    কমিশনার শাহনেওয়াজ বলেন, উচ্চ আদালত জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধনকে অবৈধ বলে রায় দিয়েছে। উচ্চ আদালতের রায়ই চূড়ান্ত। ফলে নিবন্ধনকৃত দল হিসেবে দশম জাতীয় সংসদে অংশ নিতে পারবে না বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। তবে এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন উচ্চ আদালতের রায়ের কপি আরো অধিকতর পর্যালোচনা করে দেখবে।
    অন্য দিকে,নির্বাচন কমিশনের ওয়েব সাইট থেকে এখনো বাদ দেয়া হয়নি বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নাম। গত শনিবার জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করে হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হয়। মামলার তিন বিচারপতি ওই রায়ে স্বাক্ষরের পর হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট দফতর তা প্রকাশ করে। গত ১ আগস্ট তিন বিচারকের বেঞ্চ সংবিধানের সঙ্গে গঠনতন্ত্র সাংঘর্ষিক হওয়ায় জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করে রায় দেওয়া হয়। সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে দেয়া এই রায়ে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি কাজী রেজাউল হক জামায়াতের নিবন্ধন বাতিলের পক্ষে মত দেন। তবে ওই বেঞ্চের প্রিজাইডিং বিচারক বিচারপতি এম মোয়াজ্জাম হোসেন তাতে ভিন্নমত পোষণ করেন।
    অন্যদিকে, পূর্ণাঙ্গ রায়ে বলা হয়, পাঁচ বছর আগে জামায়াতকে কর্তৃত্ব বহির্ভূতভাবে নির্বাচন কমিশন নিবন্ধন দিয়েছিল। তিন বিচারকের স্বাক্ষরের পর রায়টি প্রকাশ হয়। তবে এ রায়ের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। গত পহেলা আগস্ট উন্মুক্ত আদালতে তিন বিচারকের বেঞ্চ সংবিধানের সঙ্গে গঠণতন্ত্র সাংঘর্ষিক হওয়ায় জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করে রায় দেন।