নড়াইলে “যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রন কার্যক্রমঃঅগ্রগতি ও চ্যালেঞ্জ শীর্ষক বৈঠক

    0
    211

    আমারসিলেট24ডটকম,২৫জানুয়ারী,সুজয় কুমার বকসী: নড়াইলে “যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রন কার্যক্রমঃ অগ্রগতি ও চ্যালেঞ্জ ”শীর্ষক গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার ( ২৪ জানুয়ারী )সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রন কর্মসূচি,স্বাস্থ্য অধিদপ্তর,স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয় ,স্বাস্থ্য বিভাগ ও ব্র্যাক যৌথ আয়োজনে এ গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

    জেলা প্রশাসক আঃ গাফফার খান প্রধান অতিথি হিসাবে এ বৈঠকের উদ্বোধন করবেন। সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ আব্দুল কাদেরের সভাপতিত্বে গোল টেবিল বৈঠকে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আনন্দ কুমার বিশ্বাস,নড়াইল প্রেসক্লাবের সভাপতি এনামুল কবির টুকুসহ অনেকে।

    রির্সোস পারসন হিসাবে উপস্থিত ছিলেন পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ,নড়াইলের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত ) এম,এম জাফরী, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সঞ্জিত কুমার সাহা, সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আসাদুর জামান মুন্সি,সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ সুরেশ কুমার সাহাবৈঠকে স্বাগত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা ব্র্যাক প্রতিনিধি বিভঞ্জন বিশ্বাস এবং মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন সিনিয়ার সোশ্যাল কমিউনিকেটর অ্যাডভোকেসি ইউনিট ,ঝিনাইদহের মধু সূদন দে।

    এছাড়া মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহন করেন সাংবাদিক কার্তিক দাশ, সাইফুল ইসলাম তুহিন , শামীমূল ইসলাম টুলু, কাজী হাফিজুর রহমান। বক্তারা বলেছেন, যক্ষা এখন আর মরনব্যধি নয় । যক্ষা সনাক্ত ও সময় মত চিকিৎসা নিলে সম্পূর্ণ বাল হওয়া সম্ভব। যক্ষা বিষয় প্রথমেই প্রয়োজন সচেতনতা স্মৃষ্টি করা ।

    আর এ কাজটি সাংবাদিক, সুশিলসমাজসহ সকল পেশার নাগরিকদের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমে সম্ভব । আগামীতে যক্ষা জিরো পর্যায়ে নেওয়ার জন্য সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান বক্তারা।
    মূল প্রবন্ধে নড়াইল জেলার তিনটি উপজেলায় ১৩৬টি কফ সংগ্রহ কেন্দ্র প্রতিমাসে, কফ পরীক্ষার জন্য ৬টি ল্যবরেটরি, ব্র্যাকের স্বাস্থ্য কর্মীর সংখ্যা ৪৩জন স্বাস্থ্য সেবিকা ৪২৬জন যক্ষা রোগি চিকিৎসাধিন ৫৪৩ এবং শিশু রোগির সংখ্যা ১৫জন বলে জানানো হয়।
    জেলা পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা, এনজিও কর্মকর্তা, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক,সুশিল সমাজের প্রতিনিধিসহ জেলা পর্যায়ের ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার মোট ৫৫জন প্রতিনিধি এ বৈঠকে অংশ গ্রহন করে।