পরীক্ষার খাতা বোর্ডে জমা না দেওয়ায় কেন্দ্র সচিবকে শোকজ

    0
    242

    আমারসিলেট24ডটকম,১৯ডিসেম্বর,এম ওসমান: এসএসসি, জেএসসির মুল খাতা ও অতিরিক্ত খাতা শিক্ষা বোর্ডে জমা না দেওয়ার অপরাধে শার্শা পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র সচিব ও প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলামকে শোকজ করেছে বোর্ড কর্তৃপক্ষ। গত ২ ডিসেম্বর বিদ্যালয়ের একটি তালা বদ্ধ কক্ষ থেকে ৪২৯৮ খাতা জব্দ করেন উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট।

    জানা যায়, ২০১৪ সালের এসএসসি ও জেএসসি পরীক্ষার মুল খাতা ও অতিরিক্ত খাতা যশোর শিক্ষা বোর্ডে জমা না দিয়ে একটি ঘরে তালাবন্ধী করে রাখে কেন্দ্র সচিব। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আরিফ-উজ-জামানের নের্তৃত্বে একটি টিম তালাবদ্ধ ঐকক্ষ থেকে মুল খাতা ৩১৮ টি, অতিরিক্ত খাতা ৩ হাজার ২ শত ৬৮ টি ও অতিরিক্ত খাতার টপশীট ৭১২টি জব্দ করেন। জব্দকৃত খাতাগুলি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে জমা দেওয়া হয়েছে। যশোর জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা চেয়ে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি পত্র দেওয়া হয়। এ পত্র পাওয়ার পর যশোর মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ কেন্দ্র সচিব কে শোকজ করেছেন। এঘটনায় ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

    যশোর শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসার আবু দাউদ বলেন, এসএসসি, জেএসসির মুল খাতা ও অতিরিক্ত খাতা শিক্ষা বোর্ডে জমা না দেওয়ায় শার্শা পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র সচিব ও প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলামকে শোকজ করা হয়েছে। ৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে। অচিরেই ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    শার্শা পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম বলেন, এসএসসি ও জেএসসি পরীক্ষার খাতা জব্দের ঘটনায় আমাকে সোকজ করেনি বোর্ড থেকে কারণ দর্শানো নোটিশ দিয়েছেন। তবে আমি খুব বিপদে আছি। আপনারা আর আমাকে নিয়ে লেখা লেখি করবেন না।