পর্যটন শিল্প বিকাশের লক্ষে বৃটিশ কাউন্সিলর জেরিনের সাথে শ্রীমঙ্গলে মতবিনিময় অনুষ্ঠিত

0
135

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজার জেলার চায়ের রাজধানী খ্যাত শ্রীমঙ্গল উপজেলাসহ অত্র অঞ্চলে পর্যটন শিল্প বিকাশের লক্ষে বৃটেনের লেবার পার্টির সর্ব কনিষ্ঠ কাউন্সিলর উপজেলার ৫ নং কালাপুর ইউনিয়নের চৌধুরী বাড়ির কৃতিসন্তান শাহানিয়া চৌধুরী জেরিন এর সাথে ‘ট্যুর গাইড এন্ড ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশন অফ মৌলভীবাজার’র এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল শহরের ভানুগাছ রোডস্থ সদ্য প্রতিষ্ঠিত পর্যটক বান্ধব ‘টি ভ্যালী রেস্টুরেন্ট এন্ড বাজার’ এর ২য় তলায় মতবিনিময় সভাটি অনুষ্ঠিত হয়।

ট্যুর গাইড এন্ড ট্যুর অপারেটর এসোসিয়েশন অফ মৌলভীবাজার’র আয়োজনে এবং ‘টি ভ্যালী রেস্টুরেন্ট এন্ড বাজার’ এর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন এসোসিয়েশনের আহবায়ক মো. খালেদ হোসেন।

এসোসিয়েশনের যুগ্ম আহবায়ক ও স্মার্ট ট্যুরিজম এবং টি ভ্যালী রেস্টুরেন্ট এর পরিচালক সাংবাদিক এম এ রকিব এর সঞ্চালনায় বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বৃটিশ কাউন্সিলর শাহানিয়া চৌধুরী জেরিন এর গর্বিত পিতা মো. লিটন চৌধুরী, শ্রীমঙ্গল পৌরসভার কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র মীর এম এ সালাম, ট্যুরিষ্ট পুলিশ শ্রীমঙ্গল জোনের ওসি প্রদিপ কুমার চক্রবর্তি, শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে থানার ওসি শফিউল আলম পাটোয়ারী, গ্র্যান্ড সুলতান টি রিসোর্ট এন্ড গলফ্ এর সহকারী ম্যানেজার মো. বশির আহমেদ, হার্মিটেজ রেস্ট হাউজের স্বত্বাধিকারী সুলতানা নাহার।

এছাড়া মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন- বিশিষ্ট সমাজসেবক মো. তুহিন চৌধুরী, গ্রীনলীফ রেস্ট হাউজের স্বত্বাধিকারী এসকে দাশ সুমন, বালিশিরা রিসোর্ট এর এমডি মো. রাসেল আহমদ ও সাংবাদিক মো. আনিসুল ইসলাম আশরাফী প্রমূখ।

ব্রিটিশ কাউন্সিলর শাহানিয়া চৌধুরী জেরিন বলেন, ‘আমি শ্রীমঙ্গলের মানুষের ভালবাসা, আথিতেয়তা এবং এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আমাকে মুগ্ধ করেছে। আমি ব্রিটেনে পৌঁছেই আমার বন্ধু-বান্ধবসহ পরিচিত সবাইকে জানাব বাংলাদেশের কথা শ্রীমঙ্গলের মানুষের এবং অপরূপ প্রকৃতির অপার সৌন্দর্যের কথা। আমি বিশ্বাস করি আপনারা যদি পর্যটকদের মিসগাইড না করেন, আপনারা যদি অথিতিদের ভালবাসেন তারা নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে এই শ্রীমঙ্গলের কথাই বলবে তাদের স্বজনদের কাছে। আমি বিশ্বাস করি এখানে বেড়াতে আসা পর্যটকদের যদি আপনারা খুশি মনে বিদায় জানাতে পারেন তাহলেই পর্যটন শিল্পের বিকাশ ঘটবে।তিনি আরো বলেন,আর যদি আপনারা আমাকে হাসিমুখে গ্রহণ করেন,তাহলে আমি বারবার ফিরে আসবো তেমনি ভাবে আপনারা যদি লন্ডনে যান,আর আমি আপনাদেরকে হাসিমুখে বরণ করি সবকিছু ঘুরিয়ে দেখায় তাহলে আপনারা খুশি হবেন। তদ্রূপ ভাবে আপনারা যদি পর্যটকদের প্রতি সদ্ব্যবহার রাখেন তাহলে তারাও বার বার ফিরে আসবে,এক প্রশ্নের জবাবে জেরিন বলেন কৃষিনির্ভর পর্যটক এলাকা হিসেবে শ্রীমঙ্গল কে প্রতিষ্ঠা করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া উচিত এবং আমিও চেষ্টা করব লন্ডনে গিয়ে টুরিস্ট ব্যবসার সাথে জড়িতদের শ্রীমঙ্গলের প্রতি আকৃষ্ট করতে।

মতবিনিময় সভা শেষে জেরিনকে টি ভ্যালী রেস্টুরেন্ট এর পক্ষ থেকে একটি ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। পরে উপস্থিত সবাইকে নিয়ে তিনি নৈশ্যভোজে অংশ গ্রহন করেন।