পশ্চিমাদের চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিলেন এরদোয়ান

0
225

উন্নত এফ-১৬ পেলো তুর্কি সামরিক বাহিনী
তরুণদের উদ্দেশে এরদোয়ানের পরামর্শ

আমার সিলেট ডেস্কঃ গত সোমবার তুরস্কের সরকারী গণমাধ্যম আরটিআর হাবেরকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেছেন: ২৮শে মে রানঅফ ভোটে এ দেশের মানুষ পশ্চিমাদের ষড়যন্ত্রের জবাব দেবে। নির্বাচনে আমাকে হারাতে আদাজল খেয়ে নেমেছে পশ্চিমা মিডিয়া। তারা নির্লজ্জভাবে আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলিয়েছে। আমার বিরুদ্ধে ধারাবাহিকভাবে মিথ্যাচার করেছে। তা সত্ত্বেও তুরস্কের মানুষ ১৪ই মে’র নির্বাচনে আমাকেই জয়ী করেছে। আশা করি, ২৮শে মে অনুষ্ঠিতব্য দ্বিতীয় দফা, অর্থাৎ রানঅফ ভোটেও পশ্চিমাদের গালে চপেটাঘাত করে আমাকেই জয়ী করবে। আমরা আমাদের গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ অর্জন করেছি। তুরস্কের অত্যাধুনিক সমরাস্ত্র ও সামরিক শক্তির উত্থানে ভীত হয়ে পশ্চিমারা আমাদের পেছনে লেগেছে। এছাড়া, তুরস্কের কারণেই কাতার, আজাবাইজান ও লিবিয়ায় বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে পারেনি ওরা। আমরা এখন শত্রু আর মিত্র খুব পরিস্কারভাবে চিনতে পারছি।
এদিকে, তুরস্কের ডিফেন্স ইন্ডাস্ট্রিজ প্রেসিডেন্সির (এসএসবি) প্রধান ইসমাইল দেমীর ঘোষণা করেছেন: আমরা আমাদের প্রতিরক্ষা শিল্পের মাধ্যমে প্রথমবারের মতো দেশীয়ভাবে আধুনিক করা জঙ্গীবিমান এফ-১৬ তুরস্কের সামরিক বাহিনীর কাছে হস্তান্তর করেছি। এখন থেকে আমাদের এ বিমানগুলো আরো উন্নত ক্ষমতা ও আধুনিক পদ্ধতিতে আমাদের বাহিনীকে পরিষেবা দিতে পারবে।
এসএসবি জানিয়েছে, কাঠামোগত উন্নয়ন প্রকল্পের মাঝে রয়েছে, ব্লক-৩০ এর এফ-১৬ বিমানের আয়ুষ্কাল আট হাজার ঘণ্টা থেকে ১২ হাজার ঘণ্টায় উন্নীত করা। এছাড়া, জাতীয় ও অভ্যন্তরীণ উপায়ে বিকশিত এভিয়নিক সক্ষমতাগুলো এ বিমানে একত্রিত করা হয়েছে। সেই সাথে দেশীয় গোলাবারুদ ও ক্ষেপণাস্ত্র সরাসরি এফ-১৬-এ একত্রিত ও ইনস্টল করা যাবে। প্রকল্পটি ব্লক-৪০ ও ব্লক-৫০ বিমানের ক্ষেত্রেও প্রয়োগ করা হবে। ২০৪০ সাল পর্যন্ত প্রাসঙ্গিক ইনভেন্টরি কার্যকরভাবে ব্যবহার করা যাবে।
ওদিকে, শনিবার তুরস্কের তরুণ ভোটারদের উদ্দেশে প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেছেন: বিগত ২১ বছর ধরে আমার জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি (একে পার্টি) সরকারে আছে। আমার সরকার তরুণদের স্বাধীনতা রক্ষায় কাজ করেছে। যারা তাদের রাজনৈতিক ব্যর্থতা তোমাদের সাথে শেয়ার করতে চায়, তাদের মিথ্যাচারে কান দেবে না। ওরা (বিরোধীরা) অন্ধকারে ছবি আঁকার চেষ্টা করছে। বিগত ২১ বছরে আমরা যুবকদের জীবন-যাত্রায় কোনো হস্তক্ষেপ করিনি। একই সাথে আমরা কাউকে অন্যের পোশাক, চিন্তাভাবনা, প্রত্যাশা ও রুচির ওপর হস্তক্ষেপ করতে দেয়নি। বহু কাজ ছাড়াও আমরা অনেক বিনিয়োগ ও প্রকল্প আমাদের দেশে নিয়ে এসেছি। আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি – যাতে তোমরা অবাধে তোমাদের মত প্রকাশ করতে পারো এবং তারুণ্যকে অবাধে ও পরিপূর্ণভাবে উপভোগ করতে পারো। তুরস্কের মহাকাশ ও প্রযুক্তি উৎসবের প্রসঙ্গে বলছি। সেখানে ১০ লক্ষাধিক তরুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। আমাদের এমন প্ল্যাটফর্ম রয়েছে – যেখানে তোমরা তোমাদের সম্ভাবনা দেখাতে পারো এবং বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতা করতে পারো।
সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি, হুরিয়াত ডেইলি ও ডেইলি সাবাহ।