প্রথমবারের মতো লাল ভুট্টা চাষ করলেন গাজার এক মুসলিম কৃষক

0
256

আমার সিলেট ডেস্ক রিপোর্ট: প্রথমবারের মতো ফিলিস্তিনের উত্তর গাজার বেইট লাহিয়ার কৃষক মুহম্মদ আবু লাহিয়া (৩৯) তার খামারে লাল ভুট্টা চাষে সফল হয়েছেন। ভিন্ন স্বাদের এ ভুট্টা মানষের শরীরে নানা উপকার করে থাকে -যা তাকে এটি চাষে কৌতূহলী করে তোলে।
লাহিয়া বলেন: আমি দু’ মাস আগে লাল ভুট্ট বুনি। এ ফল প্রথম দফায় কেটে তা বন্ধু-বান্ধব ও আত্বীয়-স্বজনকে বিনামূল্যে দিয়েছি। তখন অনেকে ভেবেছেন – আমি বুঝি আমার ফলগুলো রঙিন করেছি। তাই, অনেকে খেতে অনীহা দেখান। কিন্তু খাওয়ার পর, অনেকেই আমাকে আরো লাল ভুট্টা চাষের জন্যে উৎসাহ দেন। প্রথম দিকে সফলতা নিয়ে সন্দিহান হলেও পরে সাহস করে এগিয়ে যাই। যেহেতু আমি ছোটোবেলা থেকে বাবার সাথে কৃষি কাজ করে আসছি, সেহেতু আমি জানি, জমিতে সব কিছু উৎপাদন করা যায়। তাই, আমি দুঃসাহসিক এ কাজের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। লাল ভুট্টা সম্পর্কে সব তথ্য জানতে প্রতিদিন অনেক সময় ব্যয় করি। লাল ভুট্টা মূলত আঁশের একটি উৎস – যা পাকস্থলীকে নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। এতে রয়েছে ভিটামিন এ – যা শরীরের বিভিন্ন অঙ্গের কার্যকারিতা বজায় রাখে। আরো রয়েছে, ক্যালসিয়াম – যা হাড় ও দাঁতকে মজবুত করতে সহায়তা করে। এছাড়াও এ ভুট্টার দানা ভিটামিন সি, আয়রন, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, জিঙ্ক, তামা, ফসফরাস ও ম্যাগনেসিয়ামসহ অন্যান্য পুষ্টি সরবরাহ করে। রঙ্গিন দানাগুলোতে অ্যন্থোসায়ানিন পিগপেন্টযুক্ত যৌগ রয়েছে। আর এ যৌগগুলোতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট – যা মানবদেহকে ক্ষতিকর নানান প্রদাহ থেকে রক্ষা করতে পারে। এসব সুবিধার কথা জেনে কৌতুহলী হয়েই আমি এ ভুট্টার বীজ চাষের সিদ্ধান্ত নেই। এটির চাষ সহজ। কেননা, এটি চাষের সময় সেচে খুব বেশী পানি লাগে না। সব ঋতুতেই বোনা যায়। চাষ পদ্ধতিটি সব ধরনের আবহাওয়ার সাথে খাপ খেতে পারে। এমনকি অন্যান্য ফসলের চেয়ে সারও কম লাগে। দশ দিনের ভেতরে দ্বিতীয় দফায় আমি লাল ভুট্টা কাটতে চলেছি। সেগুলো বিক্রি করে অর্থ আয়ের আশা রাখি – যা আমার পরিবারকে বাঁচিয়ে রাখতে সহায়তা করবে।
লাহিয়ার এ উদ্যোগে গাজাবাসিনী সাবরিনা আবু জাবাল উৎসাহ দেন। সূত্র: দ্য নিউ আরব ও টিএনএ।