কাজী শাহিদের বরখাস্ত প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন

    1
    338

    আমারসিলেট 24ডটকম , সেপ্টেম্বর ,এস. এম. সুলতান খান :  হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার নূর মোহাম্মদপুর দারুল ইসলাম রহমানিয়া ফাজিল মাদ্রাসার ইংরেজি প্রভাষক কাজী শাহিদ মিয়ার বরখাস্ত প্রত্যাহারের দাবিতে শনিবার সকাল ১১টায় মানববন্ধন করেছে মাদ্রাসা ছাত্র ছাত্রীরা। জানা যায়, উপজেলার নূর মোহাম্মদপুর দারুল ইসলাম রহমানিয়া ফাজিল মাদ্রাসার গর্ভনিং বডির সভাপতি মাওলানা আবু তাহের মোহাম্মদ ছালেহ্ উদ্দিনের ছেলে আবি আব দিল্লাহকে ওই মাদ্রাসায় আরবি প্রভাষক হিসাবে নিয়োগ দিয়ে অবৈধভাবে ইংরেজি প্রভাষক কাজী শাহিদ মিয়াকে বরখাস্ত করেন।

    গত ৫ সেপ্টেম্বর অবৈধভাবে গর্ভনিং বডির সভা ডেকে রেজুলেশন করেন। পরে গত ৮ সেপ্টেম্বর ইংরেজি প্রভাষক শাহিদকে মাদ্রাসা থেকে বরখাস্ত করা হয়। স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই মাদ্রাসার গর্ভনিং বডির সভাপতি মাওলানা আবু তাহের মোহাম্মদ ছালেহ্ উদ্দিন ও প্রিন্সিপাল মাওলানা মনছুর আহমদ তাদের মনগড়া মত সিদ্ধান্ত নিয়ে ইংরেজি প্রভাষককে বরখাস্ত করে আবি আব দিল্লাহকে আরবী প্রভাষক হিসাবে নিয়োগ প্রদান করেন। সভাপতি ও প্রিন্সিপালের এমন কর্মকান্ডে মাদ্রাসার ছাত্র ছাত্রীরা বিক্ষোব্ধ হয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে ক্লাস বর্জনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন আসছে। উল্লেখ্য যে, গত ২৫ মার্চ আবি আব দিল্লাহকে নিয়োগ দেয়ার পর এ পর্যন্ত তিনি কর্মস্থলে আসেননি।

    তিনি কুষ্টিয়াতে অবস্থান করছেন। কিন্তু ওই শিক্ষকের হাজিরা খাতায় যথারীতি স্বাক্ষর নেওয়া হচ্ছে। ইংরেজি প্রভাষক শাহিদ মিয়া একজন এমপিও ভূক্ত শিক্ষক। তাকে বরখাস্ত করে মাদ্রাসার গর্ভনিং বডির সভাপতি মাওলানা আবু তাহের মোহাম্মদ ছালেহ উদ্দিনের ছেলে আরবী প্রভাষক আবি আব দিল্লাহর এমপিও ভূক্তির অবৈধ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ সমস্ত অনিয়ম দুর্নীতির কারণে ছাত্র ছাত্রীদের পাশাপাশি অভিভাবক এবং এলাকার জনসাধারণ বিক্ষোব্ধ হয়ে উঠেছে। এলাকার লোকজন ঐতিহ্যবাহী নূর মোহাম্মদপুর দারুল ইসলাম রহমানিয়া ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষার মান ও মাদ্রাসার ঐতিহ্য রক্ষার্থে সরকারের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছেন।