প্রেমিককে দায়ী করে তিন পাতার পত্র লিখে তরুণীর আত্মহত্যা

    0
    240

    আমারসিলেট24ডটকম,২০জানুয়ারীঃবিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পতনউষার ইউনিয়নের বৃন্দাবনপুর পালিত কোনা গ্রামের দরিদ্র মঈনুল মিয়ার মেয়ে লিপা বেগম ওরপে হেপীর সাথে প্রেম করে কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও ইউনিয়নের গাড়ি চালক রাফি মিয়া। দীর্ঘ দিন প্রেম করে গাড়ি চালক প্রেমিক যখন অন্য স্থানে বিয়ের উদ্যোগ নেয়, ব্যর্থ প্রেমিকা তখন নিজ বসত ঘরের চালার সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। তার আগে এ মৃত্যূর জন্য দায়ী চালক উল্লেখ করে তিন পাতার একটি পত্র লিখে যায়। আত্মহত্যার প্ররোচনার দায়ে প্রেমিক গাড়ি চালককে আসামী করে নিহত মেয়ের মা বাদী হয়ে কমলগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

    ১৯ জানুয়ারী রোববার সন্ধ্যায় এ ঘটনাটি ঘটলেও পুলিশ রাত ১০ টায় লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছে। শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসআই রফিকুল ইসলাম বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করে ময়না তদন্তের জন্য লাশটি মর্গে পাঠিয়েছেন। লাশের সাথে তিন পাতার একটি পত্র উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে এসআই রফিক আরও বলেন, এজন্য নিহতের মা হাসনা বেগম বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনায় দায়ী হিসাবে মেয়ের প্রেমিক গাড়ি চালক রাফি মিয়ার বিরুদ্ধে শনিবার রাতেই কমলগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।