ফিলিস্তিনে ইজরাইলি বাহিনীর নির্বিচারে গণহত্যার বিরুদ্ধে শ্রীমঙ্গলে মানববন্ধন

0
845

নূর মোহাম্মদ সাগর, শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে বাংলাদেশ মুসলিম যুব ঐক্য পরিষদ এর ব্যানারে মঙ্গলবার ‌(১৯ মে) শ্রীমঙ্গল চৌমুহনা চত্বরে বেলা ১১টায় ফিলিস্তিনের নিরীহ মানুষের উপর ইসরায়েলের সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয় । বাংলাদেশ মুসলিম যুব ঐক্য পরিষদের আহবায়ক আশরাফুল খানের সভাপতিত্বে ও মোর্শেদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় মানববন্ধন প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। আয়োজিত মানববন্ধনে সর্বস্তরের মানুষ একাত্মতা প্রকাশ করে এতে যোগ দেয়; বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক, শ্রমিক, মানবাধিকার সংগঠন, কবি-সাহিত্যিকদের প্রতিনিধি ধর্মপ্রাণ মুসলমানসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষেরা প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় সাংবাদিক এসময় উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, যুগ যুগ ধরে ইসরায়েল ফিলিস্তিনিদের উপর হামলা-নির্যাতন করে আসছে, ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের পবিত্র মসজিদ আল আকসাকেও মুসলমানদের রক্তে রক্তাক্ত করে নিজেদেরকে বিশ্বের মাঝে ইসরাইল একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত করেছে।
এ পর্যন্ত ২৫০ জনের বেশি মানুষ শহীদ করেছে সন্ত্রাসী ইসরায়েলী সেনাবাহিনী। যার ভিতর ৫৮ জন শিশু ও ৩৪ নারী রয়েছে, নারী শিশু নির্বিচারে হত্যা করে চলছে। মুসলমানদের প্রথম কেবলা বায়তুল মুকাদ্দাসে নামাজরত মুসল্লীদের উপর হামলা করে শতশত মানুষকে আহত করেছে। ইসরাইলি হামলা সকল মানবতাকে হার মানিয়েছে। বারবার এমন সন্ত্রাসী হামলার পরও জাতিসংঘ, ওআইসি’র ভূমিকা রহস্যজনক। বিশ্ব মানবাধিকার সংগঠন গুলোও এ বিষয়ে কোন ভূমিকা রাখছে না। ইসরায়েলকে সমর্থনের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশসহ শান্তিপ্রিয় সকল দেশকে একত্রে ইসরায়েলের সন্ত্রাসী হামলার বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার আহবান জানান। ফিলিস্তিনের উপর ইসরায়েলের সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে একবিংশ শতাব্দীর বড় সন্ত্রাসী উল্লেখ করা হয়। পাশাপাশি বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানানো হয় এ ধরনের সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ করার জন্য। বক্তারা আরো বলেন,জাতিসংঘ, ওআইসি সহ বিশ্ব মানবতাবাদী সংগঠন গুলো চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। এমনকি এ সংগঠন গুলো সামান্যতম নিন্দা প্রতিবাদও জানাতে পারেনি। সারাবিশ্বে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। ইসরায়েলের এ নগ্নতা বন্ধ করতে না পারলে মধ্যেপ্রাচ্য রাজনীতি সংকটে পড়বে এবং ইসরায়েল কে এর চরম মাশুল দিতে হবে।