ফুলে ফুলে সিক্ত হয়ে জুড়ীর কবির স্যারের চির বিদায়

0
665
ফুলে ফুলে সিক্ত হয়ে জুড়ীর কবির স্যারের চির বিদায়

এম এম সামছুল ইসলাম জুড়ী (মৌলভীবাজার): মৌলভীবাজারের জুড়ী সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক ও জুড়ী উপজেলা স্কাউটস্ কোষাধক্ষ মো: কবির উদ্দিন আহমেদ (৪৫) মৃত্যুর সাথে পাঞ্জালড়ে অবশেষে চির বিদায় নিলেন (ইন্নানিল্লাহি….রাজিয়ুন)। বৃহস্পতিবার (২/৯) ২টায় জুড়ী বড়মসজিদ মাঠে হাজারো মুসল্লিয়ানগনের উপস্থিতে তাঁর জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার (২৮ আগস্ট) কবির উদ্দিন সিএনজি যোগে জুড়ী থেকে কুলউড়া যাওয়ার পথে ভূয়াই নামক স্থানে বিপরিত থেকে আসা অপর সিএনজি স্বযোরে ধাক্কা দিলে সামনে বসা কবির উদ্দিন সিটকে পড়ে যান। পরে স্থানীও জনতা তাকে উদ্ধার করে কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে সাথে সাথে সিলেট নিয়ে যেতে বললে তাকে সিলেট ওসমানি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে আইসিইওতে ৪ দিন থাকা পরও তার অবস্থার আরোও অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হলে পথিমধ্যে মাধবপুর নামক স্থানে বুধবার (১ নভেম্বর) রাত ৮টায় এম্বুল্যেন্সেই তিনি চির বিদায় নেন।

তাঁকে সেখান থেকে তাঁর লাশ জুড়ীতে নিজ বাড়িতে রাত ১২ টায় নিয়ে আসা হলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণ হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাঁর মৃত্যুর সংবাদ প্রচারিত হলে স্কুলের শিক্ষক , ছাত্র-ছাত্রী , অভিভাবক ও গুনোগ্রাহীরা তাকে এক নজর দেখতে অশ্রুসজল চোখে বাড়িতে বিড় জমায়। পরদিন সকাল ১২টা ৩০ মিনিটে তাঁর নিজ কর্মস্থল জুড়ী সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে তাঁর লাশ নিয়ে আসা হলে সেখানেও এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণ হয়। শিক্ষক ,কর্মচারী, ছাত্র-ছাত্রী ও গুনোগ্রাহী, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সমাজিক, ক্রীড়া ব্যক্তিবর্গরা অশ্রুসজল নয়নে ও ফুল হাতে তাঁর কফিনে শেষ শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদর্শন করে। এতে ফুলে ফুলে তাঁর কফিন ভরে যায়। বাংলাদেশ স্কাউটস্ জুড়ী উপজেলা (স্কাউটস্ সদস্যরা) গভীর শোকাবহ বিহগল কোচকাওয়াজ বাজিয়ে তাঁকে গার্ড অব অর্নার প্রদান করে। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ১ ছেলে ও ১ মেয়ে রেখে গেছেন। পরে বিকেল ১ টা ৩০ মিনিটে জুড়ী বড় মসজিদ প্রাঙ্গনে জানাযার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। বিকেল ২ টার সময় মসজিদ প্রাঙ্গনে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়।

জুড়ী টাউন ক্লাব সভাপতি জাহাঙ্গির আলমের পরিচালনায় এ সময় তাঁর স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য প্রদান করেন, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও স্কাউটস্ সহ-সভাপতি মিছবাউর রহমান, কুলাউড়া পুলিশ সার্কেল সাদিক কাউছার দস্তগির, জুড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ মোঈদ ফারুক, জুড়ী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সঞ্জয় চক্রবর্তী, জুড়ী উপজেলা প্রকৌশলি (সাবেক) নাজির আহমদ, বড়লেখা পিসি উচ্চ বিদ্যালয় স্কাউটস্ শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন, কুলাউড়া উপজেলা স্কাউটস্ সম্পাদক সোহেল আহমদ, জুড়ী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রিংকু রঞ্জন দাস, জুড়ী মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি সভাপতি, মক্তদির বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক ইছহাক আলী, জুড়ী সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যায়ল প্রধান শিক্ষক সীতাংশু শেখর দাস, জুড়ী উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি সিরাজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম ও বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি জুড়ী উপজেলা ইউনিট সভাপতি এ,বি,এম নূরুল হক ও সাধারণ সম্পাদক এম এম সামছুল ইসলাম প্রমূখ। উল্লেখ্য যে, এখনো ঘাতক সিএনজি ও চালকে গ্রেপ্তার করতে পারিনি পুলিশ।