ফেঞ্চুগঞ্জ সার কারখানার সরবরাহকৃত ৫০কেজিতে ১০কেজি নাই!

    0
    223

    ফেঞ্চুগঞ্জ সার কারখানা থেকে সরবরাহকৃত ৫০ কেজি সারের বস্তায় ৮/১০কেজি করে কম,সার ডিলারের বিরুদ্ধে কৃষকদের সাথে প্রতারণার অভিযোগ”

    আমারসিলেট 24ডটকম,০৪অক্টোবরশাব্বির এলাহীঃ সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ সার কারখানা থেকে পরিবেশকদের(ডিলার) কাছে সরবরাহকৃত  ইউরিয়া সারের প্রতি বস্তায়৮/১০ কেজি করে কম সার পাওয়া যাচ্ছে বলে বিভিন্ন পরিবেশক(ডিলার), সাব-ডিলার ও কৃষকরা জানান।এছাড়া নি¤œ মানের জমাট বাঁধা ইউরিয়া সারও রয়েছে এসব বস্তায়।গত মাসেফেঞ্চুগঞ্জ সার কারখানার ভারপ্রাপ্ত মহাব্যবস্থাপক ইসকান্দার আলীর সঙ্গে বৈঠক করে ্বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার এসোসিয়েশন(বি.এফ.এ) সিলেট বিভাগীয় পরিবেশক কমিটির কর্মকর্তারা এসব অভিযোগ করলে কারখানা কর্তৃপক্ষ সমাধানের আশ্বাস দিলেও এখন পর্যন্ত বিভিন্ন ডিলারের কাছে সরবরাহকৃত বস্তায় ৫ থেকে ১০ কেজি করে কম সার পাওয়া যাচ্ছে বলে জানান বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার এসোসিয়েশন(বি.এফ.এ) মৌলভীবাজার জেলা শাখার যুগ্ম সম্পাদক প্রমথ পাল পিনাক।তার মতে, এতে কৃষকরা যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন,তেমনি ডিলার ও সাব ডিলাররাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।এদিকে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার এক সার ডিলারের বিরুদ্ধে  কৃষকদের কাছ থেকে ৫০ কেজি সারের বস্তার নির্ধারিত  মূল্য নিয়ে প্রতি বস্তায় ৮/১০ কেজি করে কম সার দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহষ্পতিবার  আদমপুর ইউনিয়নের কৃষক ও সাব-ডিলাররা এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য  কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অবিযোগ দিয়েছেন।অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,বি,সি,আই.সি.অনুমোদিত স্থানীয় সার ডিলার “খাঁন এন্ড সন্স”এর কাছ থেকে বাজার মুল্যে ৫০কেজি ব¯তার  ইউরিয়া সার কিনে কৃষক ও সাব-ডিলাররা প্রতি ব¯তায় ৮/১০কেজি করে কম সার পাচ্ছেন।।এতে তারা আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। ফরিদমিয়া, ইরন মিয়া,ইকবাল হোসেন ,মছব্বির মিয়া,রজব আলী প্রমূখ কৃষকরা জানান, তারা পরিশ্রমের টাকায় ডিলারকে বিশ্বাস করে ৫০কেজি ওজনের ইউরিয়া সারের বস্তা কিনে জমিতে ছিটানোর সময় বস্তা খুলে ৮/১০ কেজি সার কম পাচ্ছেন।।স্থানীয় সাব-ডিলার আং মতিন ও গোপাল দেব চৌধুরী ডিলারের কাছ থেকে ৫০কেজির বস্তা কিনে পরে দোকানে ওজন করে  কম পেয়ে ফেরত দিয়েছেন বলে জানান। সার ডিলার “খাঁন এন্ড সন্স”এর  সত্ত্বাধিকারী আদমপুর বাজার ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সভাপতি আব্দুল মন্নান খাঁেনর কাছে সার কম দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে অবিযোগের সত্যতা স্বীকার করে তিনি বি,সি.আই.সি. সার কারখানা,ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে সার কম পেয়েছেন এবং এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করবেন বলে জানান। আদমপুর ইউপি চেয়ারম্যান সাব্বির আহমদ ভূঁইয়া  কৃষকদের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে সত্যতা যাচাই করতে তাৎক্ষণিক “খাঁন এন্ড সন্স”এর  বিক্রয় কেন্দ্রে গিয়ে ওজন করে ৫০ কেজির বেশ কিছু বস্তায় ৪০ কেজি করে  সার পেয়েছেন বলে এ প্রতিবেদককে জানান।কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম মিঞা এ ব্যাপারে জানান,ডিলারদের কাছ থেকে ওজন করে সার ক্রয়ের জন্য কৃষকদের পরামর্শ দিয়েছেন।