“ফেলানি হত্যা”বিচারের নামে প্রহসন বলেছেন ড.মিজানুর রহমান

    0
    266

     

    ড.মিজানুর রহমান
    ড.মিজানুর রহমান

    আমারসিলেট 24ডটকম,১০ সেপ্টেম্বর  :  বাংলাদেশী কিশোরী ফেলানী খাতুন হত্যাকান্ডের বিচারকে প্রহসন আখ্যায়িত করে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান বলেছেন, ফেলানি হত্যার বিচার হয়নি। বিচারের নামে প্রহসন হয়েছে। এর ফলে অপরাধপ্রবণ বিএসএফ’র জওয়ানরা আরও উৎসাহিত হয়েছে এবং এ ধরনের ঘটনা ঘটেই চলেছে। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের আশঙ্কা সত্যি হয়েছে।

    মঙ্গলবার সকালে কুষ্টিয়া জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। বিএসএফ কর্তৃক বাংলাদেশের নিরীহ জনগণের উপর নির্যাতন ও হত্যা সর্ম্পকে মন্তব্য করে তিনি বলেন, বিএসএফ যে কাজটি করেছে সেটি সুস্পষ্টভাবে আর্ন্তজাতিক আইনের লঙ্ঘন। আমরা আইন লঙ্ঘনের প্রতিবাদ করছি।তিনি আরও বলেন, এ ধরনের ঘটনা অনাকাঙ্খিত। বিএসএফ সদস্যদের মনে রাখতে হবে, এ বিষয়ে র্আর্ন্তজাতিক আইন রয়েছে।

    সেগুলির প্রতি তাদের সম্মান প্রদর্শন করতে হবে। কোন সভ্য দেশের মধ্যে এ ধরনের আচরণ থাকতে পারে না।এই ধরনের কার্যকলাপ চলতে থাকলে আমরা আর্ন্তজাতিক আদালতে যেতে বাধ্য হবো মন্তব্য করে মানবাধিকার কমিশন চেয়ারম্যান বলেন, এ ধরনের বার্তা পররাষ্ট্রমন্ত্রনালয় ও সরকারের তরফ থেকে অবশ্যই ভারতের কাছে পৌছে দেয়া উচিত।তিনি আরও বলেন, দু’দেশের দ্বি-পাক্ষীয় সর্ম্পকের ভিত্তিতে এটি মিমাংসা হওয়া দরকার।

    এটি করার জন্য সরকারের অতি শিগগিরই পদক্ষেপ নেয়া উচিত।এরপর তিনি একই স্থানে কুষ্টিয়ার সামাজিক বির্পযয় ও মানবাধিকার লংঘন প্রতিরোধে আমাদের করণীয় শীর্ষক মতবিনিময় সভায় যোগ দেন। ওই সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এবং আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহি পরিচালক সুলতানা কামাল।

    কুষ্টিয়া মানবাধিকার ফোরাম-এর আহবায়ক মমতাজ আরা বেগমের সভাপত্বিতে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেন, পুলিশ সুপার মফিজ উদ্দিন আহমেদ, জেলা পরিষদের প্রশাসক জাহিদ হোসেন জাফর, বুষ্টিয়া সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর বদরুদোজ্জা, এ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। মতবিনিময় সভায় জেলার বিভিন্ন এনজিও কর্মকর্তা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও সাংবাদিকবৃন্দ যোগ দেন।