ফ্রান্সে অবস্তানরত সাবেক ছাত্রদল নেতৃবৃন্দের প্রতিবাদ

    0
    248

    আমার সিলেট  24 ডটকম,অক্টোবরআবু তাহেরঃ নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় অবরুদ্ধ করে রেখেছে পুলিশ। দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কাউকে ঢুকতে বা বের হতে দেয়া হচ্ছে না। গত বৃহস্পতিবার ভোর থেকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় ঘিরে অবস্থান নেয় পুলিশ। একই সঙ্গে নয়াপল্টন এলাকার মোড় গুলোতে তল্লাশি চৌকি বসিয়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়।অতিরিক্ত পুলিশ এসে বিএনপির অফিসের সামনে অবস্থান নেয়। একটা গনতান্ত্রিক দেশে বিরোধীদলের কেন্দ্রীয় অফিস ঘেরাও পৃথিবীতে নজির বিহীন।মুলত ২৫ অক্টোবরের সমাবেশ বানচাল করতে সরকার এই হীন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে এক যৌথ বিবৃতিতে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ফ্রান্সে অবস্তানরত জাতী্য়তাবাদি ছাত্রদলের সাবেক নেতৃবৃন্দ,
    তারা বলেন,দেশের জনগন বর্তমান পরিস্থিতিতে ঈদের আনন্দ যথাযথভাবে উপভোগ করতে পারেনি,কারন দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি, দরিদ্রতা,ছিনতাই,চাদাবাজি,সর্বোপরি সন্ত্রাস, পানি সংকট, জ্বালানি তেল, গ্যাস, বিদ্যুতের তীব্র সংকট জনজীবনে দুর্বিষহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে সরকার।এসব গুরুত্বপুর্ন বিষয়ে কর্নপাত না করে সরকার ক্ষমতায় বহাল থাকার আশায় বিরোধীদলের উপর নির্যাতন চালাচ্ছে যা আধুনিক সভ্যতার যুগে সম্পুর্ন অন্যায় ও অমানবিক।
    আগামীতে কী হতে যাচ্ছে তা নিয়ে দেশের জনগন বর্তমানে শঙ্কিত।বিগত ৫ বছরে বিরোধীদলের উপর নির্যাতন পৃথিবীর সভ্য ইতিহাসকে কালো করেছে।সরকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশ্বস্ত সদস্যদের নিয়ে টর্চার স্কোয়াড গঠন করেছে যার কারনে দেশের মানুষ আতঙ্ক, উৎকণ্ঠায় দিনজাপন করছে।তত্বাবধায়ক বা  নির্দলীয় সরকারের কাছে দায়িত্ব না দিয়ে জোর করে ক্ষমতায় আসার লোভে সরকার মরিয়া হয়ে উঠেছে।দেশ যখন বেসরকারি খাতে সম্ভাবনার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে এমন সময় সরকারের সেচ্ছাচারিতা বাংলাদেশ কে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে,দেশের এ ক্ষতির দ্বায়ভার সরকারকেই নিতে হবে।
    তারা বলেন সরকার বিএনপিকে সভা সমাবেশ করতে দিচ্ছে না দাবী করে তারা বলেন  দেশ কারও বাবার সম্পত্তি নয় যে সমাবেশ করতে দেয়া হবেনা।সভ্যদেশে বাকশালী কায়েদা চলতে দেয়া যাবেনা উল্লেখ করে তারা সরকার কে উদ্দেশ্য করে বলেন অবিলম্বে বিএনপি অফিস থেকে পুলিশ প্রত্যাহার করে দেশে সুস্ত গনতন্ত্র ফিরিয়ে না দিলে প্রবাসীরা ঐক্যবদ্ধ ভাবে সরকার বিরোধী আন্দোলনে যোগ দেবে।তারা অবিলম্বে বিএনপির সকল নেতাকর্মীর উপর করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।
    সরকারের দেশব্যাপী এসকল অন্যায় অত্যচার বন্ধের দাবীতে  জাতীয়তাবাদি আদর্শের ডাকে সাড়া দিয়ে আগামী ২৪ অক্টোবর ফ্রান্সস্হ বাংলাদেশ দুতাবাস ঘেরাও কর্মসুচীতে সবাইকে যোগ দেয়ার আহবান জানান।এবং ইউরোপের প্রত্যেক দেশে জাতীয়তাবাদি আদর্শের ছায়াবাহী হয়ে প্রতিবাদ এর মাধ্যমে একজন দেশপ্রেমিক হিসাবে বাংলাদেশের এমন ভয়াবহ পরিস্তিতিতে দেশের জনগনের পাশে দাড়ানোর অনুরোধ জানান।
    সাবেক ছাত্রদল নেতৃবৃন্দের পক্ষে বিবৃতি প্রদান করেন সাবেক ছাত্রনেতা জুনেদ আহমদ,আব্দুল মালেক,ফারুক আহমদ,আব্দুল কাইয়ুম সরকার,সাইফুল ইসলাম,সৈয়দ জালাছুজ্জামান,রশীদ পাটোয়ারী,তানজিমুল ইসলাম রেকল,শেখ জায়েদ আহমদ,জাহিদুল ইসলাম শিপার,রুবেল আহমদ,তারেক আহমদ,জানু মিয়া,উদ্দীন রুমেল,রহমান আবিদাল,সুমন লোদি,শুয়েব আহমদ,আলিউর রহমান আলী,আব্দুল কুদ্দুস,মালেক মুন্না,জোনায়েদ আহমদ নাবিল,আহমেদ আল হাসান,ওয়াশিকুর রহমান,প্রমুখ।