ফ্রান্সে বিএনপির বিপ্লব ও সংহতি দিবসে প্রতিবাদ

    0
    232

    আমার সিলেট  24 ডটকম,১৩নভেম্বর,আবু তাহির,ফ্রান্স  ফ্রান্সে বিএনপি নেতা এম এ তাহের পরিচালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন আহসানুল হক বুলু । সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্পেন বিএনপির সভাপতি খুরশেদ আলম মজুমদার।সভায়  বিএনপির বক্তারা বলেন, ৭ই নভেম্বর  জাতীয় জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ দিন। এমনই এক পরিস্থিতে  ১৯৭৫সালে ১৫ই আগস্টে পট পরিবর্তন। বাকশালী তান্ডবে বাকহীন জনতাকে সবাক করার দায়িত্ব পালন করল সেনাবাহিনী। কিন্তু চক্রান্ত থেমে নেই। ৭৫ সালের ৩ থেকে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশের জন্য ছিল এক দুঃস্বপ্নের প্রহর।

    বক্তারা আর ও বলেন, ৩ নভেম্বরের বিশৃঙ্খলা থেকে দেশকে মুক্ত করে ৭ই নভেম্বর রাতে সিপাহী জনতার মিলিত বিপ্লবে জিয়া সামনে এসে দাড়ান। জাতির ক্লান্তি লগ্নে ত্রাণকর্তা হিসাবে আবির্র্ভূত হয়ে জেনারেল জিয়া দেশবাসীর উদ্দেশ্যে ভাষণে রাষ্ট্র বিরোধীদের হীন ষড়যন্ত্রকে নস্যাৎ করার জন্য সর্বস্তরে জাতি ও ঐক্য প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানান। জিয়ার নেতৃত্বে এরপর থেকেই বাংলাদেশ এগিয়ে যায়। নির্মিত হয় আধুনিক বাংলাদেশ। বক্তারা আর ও বলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, এম কে আনোয়ার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিঞা, এফবিসিসিআইয়ের সাবেক প্রেসিডেন্ট ও খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আবদুল আউয়াল মিন্টু এবং খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারী শিমুল বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার ও শীর্ষ নেতাদের বাসায় তল্লাশীর ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন । বিএনপির সিনিয়র নেতাদের গ্রেপ্তারের তীব্র  প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তারা বলেন,বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশ দিয়ে সরকার পতন ঠেকানো যাবে না।গুলি করে আইয়ূব, ইয়াহিয়া ও সরকারে টিকতে পারেনি। জনগণের শক্তির কাছে মুজিব কন্যা হাসিনার সরকারও ঠিকতে পারবে না বললেন অনুষ্টানে উপস্তিত বিএনপি বক্তারা।

    গত রবিবার জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালন এবং বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেফতার এর প্রতিবাদে ও নির্দলীয় তত্বাবধায়ক সরকারের দাবীতে ফ্রান্স বিএনপি দীর্ঘদিনের সকল বিবেদ ভুলে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের অভারভিলায় এক কাতারে মিলিত হয়ে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে বিপুল সংখ্যক নেতা কর্মী সমাবেশে যোগদান করেন।

    পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে  সমাবেশ শুরু হয়। অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন ফ্রান্স বিএনপি নেতা সাইফুর রহমান,হাজী হাবীব,জুনেদ আহমদ , মাহবুব আলম রাংগা,সানাওয়ার খান,সিরাজুর রাহমান,আছাদ বেপারী, আলম,শাহ জামাল,মিজান শিকদার,মনির খান,শাহেদ আলী,শিরমান আলী,জালাল খান,হেনু মিয়া,মফিজ আলী, রিপন হাওলাদার,শ্যামল দাস,, কিরন আহমেদ,শাওন আহমেদ,ফরিদ আহমেদ,গোলাম আবেদীন কাওছার,আইয়ুব খান,মিজানুর রাহমান,বজলুর রশিদ চৌধুরী, তারেক আহমেদ,খাইরুল কবির,জামান খান,ওমর গাজী,মনোয়ার আহমেদ,অয়াসিক রাহমান,আব্দুল্লাহ টিপু,দেলয়ার হোসেন,কয়ছর আহমেদ ,রেজাউল করিম,মুজিবুর রাহমান ,শামীম ফজলুর করিম ,কবির আহমেদ , সাইফুল আহমেদ ,সৈয়দ জালেছুজ্জামান, মাসুদ আহমেদ,রুবেল আহমেদ,আব্দুল কাইয়ুম,জাহিদুল ইসলাম সিপার ,রুহুল আমিন সহ ফ্রান্স বিএনপির নেতৃবৃন্দ।