বড়লেখায় সংরক্ষিত বনে আগুনের ঘটনায় তদন্ত কমিটির ঘটনাস্থল পরিদর্শন

0
174

আফজাল হোসেন রুমেল, বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজারের বড়লেখার পাথারিয়া হিলস রিজার্ভ ফরেস্টের আওতাধীন সমনভাগ বিটের মাখালজুড়া ও ধলছড়া এলাকার বনে আগুন লাগার ঘটনায় প্রধান বন সংরক্ষকের গঠিত এক সদস্যের তদন্ত কমিটি প্রায় দুই সপ্তাহ পর গতকাল বুধবারে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

গত ৭ মার্চ-২০২৩ ইং তারিখ দুপুরে সমনভাগ বিটের মাখালজুড়া ও ধলছড়া এলাকার সংরক্ষিত বনাঞ্চলে আগুন লাগে। এতে কয়েক হেক্টর বনভূমির বাঁশ-গাছ ও ঝোপঝাড় পুড়ে যায়। ফলে হুমকির সম্মুখিন হযে পড়ে পরিবেশ ও বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল। সংরক্ষিত বনে আগুনের এই ঘটনাটি বিভিন্ন গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার হলে বন অধিদপ্তরের প্রধান বন সংরক্ষক আমির হোসেন চৌধুরী অধিদপ্তরের উপ-বন সংরক্ষক মোস্তাফিজুর রহমানকে প্রধান করে এক সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন।

গতকাল বুধবার (২২ মার্চ) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত এই কমিটির একমাত্র সদস্য উপ-বন সংরক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি স্থানীয় বাসিন্দা, পাহাড় শ্রমিক, জনপ্রতিনিধি, বনপ্রহরী ও গণমাধ্যমকর্মীদের সাথে আগুন লাগার বিষয়ে কথাবার্তা বলেন।

তদন্ত কর্মকর্তা উপ-বন সংরক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, প্রধান বন সংরক্ষকের নির্দেশে তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান। এসময় তার সাথে ছিলেন সহকারি বন সংরক্ষক (শ্রীমঙ্গল) মো. মারুফ হাসান, সিলেট বিভাগীয় বন কার্যালয়ের সার্ভেয়ার খন্দকার আবুল কালাম আজাদ ও বড়লেখা রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস। ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে তিনি আগুনের সূত্রপাত, কি পরিমাণ বনভূমি পুড়েছে তা জিপিএস মেশিন দ্বারা পরিমাপ করেন এবং অন্য কোন কারণ রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখতে স্থানীয় বিভিন্ন জনের সাথে কথা বলেন। ঢাকায় ফিরেই তিনি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিবেন বলে জানিয়েছেন।

এর আগে ১২ মার্চ সিলেট বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. তৌহিদুল ইসলাম সংরক্ষিত বনে আগুন লাগার ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। উক্ত কমিটি গত সোমবার বিকেলে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।