বড়লেখায় সড়কে ৩ ঘন্টা অবরুদ্ধের পর নিসচার প্রচেষ্টায় মুক্ত

0
173

আফজাল হোসেন রুমেল,বড়লেখা প্রতিনিধিঃ বড়লেখা উপজেলার চান্দগ্রাম ও বিয়ানীবাজার উপজেলার বারইগ্রামের দুই উপজেলার অংশে ট্রাক-পিকআপ পরিবহন শ্রমিকদের মধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত বিশৃঙ্খলার কারণে বড়লেখা-সিলেট মহাসড়কের চান্দগ্রামে তাৎক্ষণিক সড়ক অবরোধ করে রাখে ট্রাক-পিকআপ পরিবহন শ্রমিকরা। অবরোধের কারণে দীর্ঘ ৩ ঘন্টা সড়ক অবরুদ্ধ থাকে এবং সেখানে অসহনীয় যানজটে আটকা পড়ে দূরপাল্লার যানবাহন ও ভুক্তভোগী যাত্রী-সাধারণ। হঠাৎ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্প্রচার দেখে ঘটনাস্থলে দ্রুত পৌছে যান জাতীয় সামাজিক সংগঠন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) বড়লেখা উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। এসময় স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের লোকজন উপস্থিত ছিল।

সোমবার রাতে নিসচার কেন্দ্রীয় কার্যকরী কমিটির সদস্য ও বড়লেখা উপজেলা শাখার সভাপতি তাহমীদ ইশাদ রিপন, সহ-সভাপতি আব্দুল আজিজ, কার্যনির্বাহী সদস্য শাহাব উদ্দিন, ছায়দুল আহমদ, অপু আহমদ, পারভেছ আহমদ ও স্থানীয় পুলিশের সহযোগিতাসহ অন্যান্যদের প্রচেষ্টায় দীর্ঘ ৩ ঘন্টাব্যাপী আন্দোলনকারীদের অবরোধ ও অসহনীয় যানজটের কবল থেকে মুক্তি পায় দু’দিক থেকে আটকাপড়া এ্যাম্বুলেন্স, কার, বাস, সিএনজি ও দূরপাল্লার বিভিন্ন গণপরিবহন। এসময় অবরোধে আটকাপড়া যানবাহনে রোগী, শিশু, নারী-পুরুষসহ বিভিন্ন পর্যায়ের জনসাধারণের দূর্ভোগের কথা চিন্তা করে জনস্বার্থে মানুষের কল্যাণে নিসচা বড়লেখা উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দরা ট্রাক- পিকআপ পরিবহন শ্রমিকদের অবরোধ উপেক্ষা করে অসহনীয় যানজট নিরসন করে গাড়ি চলাচলের ব্যবস্থা করে দেয়। নিসচা নেতৃবৃন্দদের কার্যক্রমে এগিয়ে আসেন জনপ্রিয় ক্রিড়া ধারাভাষ্যকার চান্দগ্রাম বাজারের ব্যবসায়ী ইকবাল হোসাইন, মিডিয়াকর্মী জাবিদ হাসানসহ স্থানীয় জনসাধারণ।

এদিকে নিসচা বড়লেখা উপজেলা শাখার এই কঠিন কার্যক্রমের প্রতি সাধুবাদ জানায় বিভিন্ন মহলের ব্যক্তিবর্গ ও যানবাহনের ভুক্তভোগী চালক, যাত্রী-জনসাধারণ। পরে হঠাৎ করেই অবরোধকারীরা নিসচা বড়লেখা উপজেলা শাখা নেতৃবৃন্দের উপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে ঘটনাস্থলে চরম উত্তেজনা দেখা দিলে স্থানীয় জনসাধারণের প্রতিবাদে কিছু কতিপয় পরিবহন শ্রমিকরা পিছু হঠতে বাধ্য হয়। আর মানুষের অগাধ ভালোবাসা অর্জন করে জনস্বার্থে দেশের অতন্দ্র প্রহরী জাতীয় সামাজিক সংগঠন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) বড়লেখা উপজেলা শাখা।