বাঁচা মরা তো আল্লাহর ইচ্ছাঃশামীম ওসমান

    0
    180

    আমারসিলেট24ডটকম,২৩মেঃ নারায়ণগঞ্জে প্যানেল মেয়রসহ ৭জন অপহরণের পর র‌্যাবের এক কর্মকর্তার সঙ্গেফোনে কথার প্রসঙ্গ টেনে শামীম ওসমান বলেছেন, “১জন র‌্যাব কর্মকর্তা আমাকেবলেছেন, “আমরা না বাঁচলে আপনিও বাঁচবেন না।”আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানের নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
    তিনি বলেন, “ওনাদের ধারনা। আমি সব জায়গায় প্রচার করছি ওদের র‌্যাব নিয়েছে, র‌্যাব নিয়েছে।র‌্যাবকে আমি দোষারোপ করছি না। আমি কিছু দুর্নীতিবাজমানুষকে দোষারোপ করছি। একজন সাংবাদিক খারাপ হলে সব সাংবাদিককে দোষারোপ করাযায় না। একজন সংসদ সদস্য চোর হলে সবাইকে চোর বলা যায় না। একজন বিচারক ভুলরায় দিলে সমগ্র বিচার বিভাগকে দোষারোপ করা যায় না।”
    তিনি বলেন, “একজন উর্ধতন কর্মকর্তা। আমি নাম বলবো না। সে একজন রেসপেকটেকপারসন। আমি তাকে গুড ম্যান হিসেবে জানি। হি থ্রেট মি লাইক এনিথিংক, মাইর্যাং ক হই মোর দ্যান মেজর জেনারেল। তার র্যাং ক আমি যতদূর জানি, মে বিডেপুটি সেক্রেটারি মাক্সিমাস। হি থ্রেট মি ‘আমি না বাঁচলে আপনারাও বাঁচবেননা। আমি সেকেন্ড কোশ্চেন করলাম, হোয়াট? সে তখন বললো ‘আমরা না বাঁচলেআপনারাও বাঁচবেন না। আমি বললাম ফাইন, বাঁচা মরা তো আল্লাহর ইচ্ছা।”
    তিনি বলেন, “আমি খুব কষ্ট পেয়েছি। আমি বুঝেছি একটি গণতান্ত্রিক দেশেজনগণের প্রতিনিধির অবস্থান কত দুর্বল। কিংবা আমি ভেবেছি ওনি হয়তো রাগেরমাথায় এগুলো বলেছেন।”অপরদিকে, নূর হোসেনের সঙ্গে তার ফোনালাপ গণমাধ্যমে প্রকাশ করায় গোয়েন্দা সংস্থারপ্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শামীম ওসমান। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, তারা (গোয়েন্দা) নূর হোসেনের অবস্থানজানার পরও তাকে ধরল না কেন।নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
    শামীম ওসমান বলেন, “আমার সঙ্গে ফোনে নূর হোসেন কথা বলছেন, গোয়েন্দাসংস্থার লোকেরা জানতেন ওই সময় নূর হোসেন ধানমন্ডি-৪ নম্বর রোডে আছেন। তারা (গোয়েন্দা সংস্থার লোকেরা) যদি জানতেন নূর হোসেন ধানমন্ডিতে আছেন, তা হলেতারা নূর হোসেনকে ধরলেন না কেন?”
    শামীম ওসমান বলেন, “এটা একটি গোয়েন্দা সংস্থার রেকর্ড করা ফোনালাপ। কারণ, টেলিফোন ট্র্যাকিং সাংবাদিকেরা করেন না, এটা করেন গোয়েন্দা সংস্থারলোকেরা। আমার ফোনও সব সময় ট্র্যাকিং করা হয়। এটা জেনেও আমি ফোনে কথাবলি।”
    নারায়ণগঞ্জের এই আলোচিত নেতা বলেন, “র‌্যাবের এডিজি বলেছেন, নূর হোসেননাকি কলকাতায় আছে। আমি ওনারটা সত্য বলব। কারণ ওনারা অনেক আধুনিক যন্ত্রপাতিদিয়ে আমাদের কথা রেকর্ড করে ছেড়ে দেন যখন-তখন। ওনারা তো অনেক আধুনিক। তাইনা?”
    শামীম ওসমান বলেন, “বলা হচ্ছে, আগের দিন নূর হোসেন ছিলেন গুলশানে। অ্যামআই রং? যদি আমি ভুল না শুনে থাকি। আর যেদিন আমাকে ফোন করল সেদিন ছিলধানমন্ডি ৪ নম্বরের আশেপাশের কোনো এলাকায়। তাহলে ওনারা জানছেন যে নূর হোসেনইজ দ্য কিলার, নূর হোসেন ইজ দ্য ক্রিমিনাল। এত হাইটেক লোক ওনারা। ডিটেকটকরে ফেলছেন কোথায় আছেন। আমার সঙ্গে কথা হয়েছে, এটাও ডিটেকট করে ফেললেন।তাহলে তাকে গ্রেফতার করা হলো না কেন”?
    শামীম ওস্মান বলেন, “গ্রেফতারের দায়িত্ব আমার নয়। দিস ইজ নট মাই ডিউটি। আমার ডিউটি হলো ভয়েস রেইজ করা। আমি কেবল ভয়েস রেইজ করেছি।”