বাবার গর্ভে সন্তান?

    0
    489

    আমারসিলেট 24ডটকম,০৩অক্টোবর:বর্তমান বিজ্ঞানের আবিষ্কার যে কল্প কাহিনীকেও হার মানায় আবারও সেটারই প্রমান পাওয়া গেলো। জার্মানীর এক ব্যক্তি জন্মেছিলেন মেয়ে হয়ে। কিন্তু শখ ছিল পুরুষ হবার। তাইতো জেন্ডার পরিবর্তন করে পুরুষ হয়ে যান তিনি। তবে জড়ায়ু রেখে দিয়েছিলেন। কারণ মার্তৃত্বের স্বাদও নিতে আগ্রহী ছিলেন তিনি। এটা  কোন গল্প নয়, একটি  ঘটনা বাস্তব। সম্প্রতি একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দিয়েছেন তিনি। এর ফলে ইউরোপের প্রথম ট্রান্সজেন্ডার মা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছেন তিনি। নিজ গর্ভের সন্তান তাকে বাবা বলে ডাকলেও ওই সন্তানের বায়োলজিক্যাল মাও কিন্তু তিনি নিজেই।

    বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের  প্রকাশিত খবরে জানা যায়, জার্মানির এ ব্যক্তি অবশ্য একজনের কাছ থেকে স্পাম (বীর্য) দত্তক নিয়েছিলেন। তার পেট দেখলে মনে হত তিনি পেটের কোন অসুখে ভুগছেন। কেউ গর্ভবতী ভেবে তাকে ভুল করত। কিন্তু অনেকেই বুঝতেন না যে আসলেই তিনি গর্ভবতী। এ বছরের মার্চে এ ব্যক্তি একটি  ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। তবে সন্তান জন্মদানের জন্য হাসপাতালে যাবার প্রস্তাব ও নাকি প্রত্যাখ্যান করেছিলেন এ জার্মান ব্যক্তি। কারণ আর কিছুই নয়, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের হিস্টোরিতে তাকে লিঙ্গ নির্ধারণ করেছিল মেয়ে বলে।
    ট্রান্সজেন্ডার মা হিসেবে জার্মানির এ ব্যক্তি ইউরোপে প্রথম হলেন। অবশ্য এটিই বিশ্বের প্রথম ঘটনা নয়। এর আগেও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের থমাস বিয়েটিক নামের এক ব্যক্তি একই প্রক্রিয়ায় তিন সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন।