বিএনপিও কি তবে ভারতের এজেন্সি নিয়েছে ?

    0
    221
     প্রধানমন্ত্রী আমারসিলেট24ডটকম,১৯মেঃ  ভারতের নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদির বিজয়ে বিএনপির উল্লাস প্রকাশ নিয়ে দলটির সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রশ্ন তুলেছেন, “বিএনপিও কি তবে ভারতের এজেন্সি নিয়েছে?” আজ সোমবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এমন প্রশ্ন তুলেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বৈঠকে উপস্থিত একমন্ত্রী এ তথ্য জানান।
    ভারতের নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদি বিজয়ে বিএনপির উল্লাসে কারণ জানতে চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আগে তো তারা আওয়ামী লীগকেই ভারতের দালাল মনে করতেন। এবার কি তবে তারা ভারতের কোনো এজেন্সি নিয়েছে।” “বিএনপি ভারতের কোনো ভালো কিছু দেখে না। তারা মনে করে আওয়ামী লীগ ভারতের দালাল। শেষ পর্যন্ত বিএনপিও তাদের অবস্থান পরির্বতন করে এখন কি তারাও ভারতের দালালি করছে,” প্রশ্ন করেন প্রধানমন্ত্রী। কয়েকজন জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী মোদির বিজয় নিয়ে বিএনপির প্রতিক্রিয়ার সমালোচনা করেন। তারা বলেন, বিজেপির বিজয়ে তাদের (বিএনপি) খুশি হবার কী আছে। তারা তো ভারত বিরোধী। তবে কি তারা তাদের অবস্থান পাল্টে ভারতপন্থী হয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, “আওয়ামী-লীগের সম্পর্ক ভারতের সঙ্গে কোনো রাজনীতিক দলের সঙ্গে নয়।” নদী দখল ও দূষণ রোধে কঠোর নির্দেশনা বৈঠকে অনির্ধারিত আলোচনায় নদীর স্বাভাবিকতা ফিরিয়ে আনার বিষয়টি উঠে আসে। মন্ত্রীদের আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “নদী দখলের সঙ্গে যেই জড়িত থাকুক, তার পরিচয় জানার দরকার নেই। দখল থেকে নদী উদ্ধারে যা যা করার তাই করতে হবে।” এ ছাড়া শহর কেন্দ্রীক নদীর তীরে ওয়াকওয়ে (হাঁটার পথ) নির্মাণের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী। ঢাকায় হাজি সেলিম, নারায়ণগঞ্জে নূর হোসেনসহ দলীয় কয়েকজন নেতার নদী দখলের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টিও তুলে ধরেন কয়েকজন মন্ত্রী। সুষ্ঠু বর্জ্য ব্যবস্থাপনার নির্দেশ ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার বিষয়টি বৈঠকে আলোচনায় আসে। এসময় একজন সদস্য জানান, বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনসহ বিভিন্ন পর্যায় থেকে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার প্রস্তাব থাকলেও ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন এতে রাজি হচ্ছে না। এসময় গৃহ বর্জ্যসহ সব ধরনের বর্জ্যের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নিশ্চিতের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বিভৎস্য ছবি প্রচার রোধের বিষয় নীতিমালায় অন্তর্ভূক্ত বিভিন্ন গণমাধ্যমে দুর্ঘটনা, খুনের বিভৎস্য ছবি প্রচারের বিষয়টি নিয়ে মন্ত্রিসভা বৈঠকের অনির্ধারিত আলোচনায় কয়েকজন মন্ত্রী কথা বলেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দুর্ঘটনা হয়, কিন্তু সেখানকার গণমাধ্যমে বিভৎস্য ছবি প্রচার করা হয় না। অন্যান্য দেশের সম্প্রচার নীতিমালায় বিভৎস্য ছবি প্রচার রোধের বিষয়টি রয়েছে। আলোচনায় অংশ নেয়া মন্ত্রীরা তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুকে জাতীয় সম্প্রচার নীতিমালায় এ বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত করার কথা বলেন। এছাড়া অনির্ধারিত আলোচনায় মেঘনায় লঞ্চ ডুবিতে হতাহত ও উদ্ধার কার্যক্রমের বিষয়টিও আসে বলেও বৈঠক সূত্র জানিয়েছে।